অবিরাম বর্ষণে শহরের বিভিন্ন এলাকা প্লাবিত, পাহাড় ধ্বসের আশঙ্কা

পরিতোষ বড়ুয়া পবনঃ

গতকাল মঙ্গলবার (১৬ই জুন) থেকে কক্সবাজারে ভারী বর্ষণ অব্যাহত রয়েছে। মৌসুমী বায়ু সক্রিয় ও উত্তর বঙ্গোপসাগরে সঞ্চারনশীল মেঘমালা সৃষ্টির কারণে চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মংলা ও পায়রা সমুদ্র বন্দরকে তিন নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত দেওয়া হয়েছে।

কক্সবাজারে গত ২৪ ঘণ্টায় ২৩৮ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করেছে স্থানীয় আবহাওয়া অফিস। অব্যাহত ভারী বর্ষণের ফলে জমে থাকা বৃষ্টির পানি নামতে না পারায় বিভিন্ন স্থানে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে। কক্সবাজার শহরের প্রধান সড়কে কোমর পর্যন্ত পানিতে তলিয়ে গেছে। আর, বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও মানুষের বাসা বড়িতে বৃষ্টির পানি প্রবেশ করেছে।

টানা বৃষ্টিতে কক্সবাজার পর্যটন শহর সহ বিভিন্ন স্থান তলিয়ে গেছে। শহরের কালুর দোকান, খুরুশকুল রাস্তার মাথা, বড়বাজার, বাহারছড়া ,বার্মিজ মার্কেটসহ নানা স্থানে ভারি বর্ষণে দুর্ভোগে পড়েছেন লোকজন। পানি নিষ্কাশনের কোনো ব্যবস্থা না থাকায় এসব স্থানে জলাবদ্ধতা ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে।

শহরের বার্মিজ মার্কেট এলাকায় কোমর সমান পানি

আবহাওয়া অফিস সূত্রে জানা যায়, বঙ্গোপসাগরের লঘুচাপ বিরাজ করছে। সৃষ্ট লঘুচাপের প্রভাবে টানা প্রবল বৃষ্টিপাত হচ্ছে। আরও দুয়েক দিন বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

বৃষ্টিতে এখন কক্সবাজার শহরের অধিকাংশ এলাকা জলমগ্ন। অপরিকল্পিতভাবে নানা স্থাপনা গড়ে ওঠায় এ সমস্যা আরও প্রকট হয়েছে।

উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে রাস্তাঘাটের ব্যাপক ক্ষতি হচ্ছে। ভঙ্গুর সড়কগুলো আরও ভঙ্গুর হয়ে বেহাল দশায় পরিণত হচ্ছে। এর মধ্যে কক্সবাজার শহরের প্রধান সড়কের অবস্থা অত্যন্ত নাজুক।

শহরের প্রধান সড়কের খুরুশকুল রাস্তার মাথা সংলগ্ন স্থানে প্রধান সড়কে মারাত্মক অবস্থা সৃষ্টি হয়েছে। সেখানে গর্ত হয়ে বৃষ্টির পানিতে পুকুরে পরিণত হয়েছে।

অতি ভারী বর্ষণের ফলে ভূমিধসের আশঙ্কা রয়েছে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

Share the post
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply