ইরানি ট্যাঙ্কারে হামলার পর তেলের দাম বৃদ্ধি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

ন্যাশনাল ইরানিয়ান ট্যাংকার কোম্পানির (এনআইটিসি) এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে সৌদি আরবের বন্দরনগরী জেদ্দা উপকূলে সিনোপা নামের ট্যাংকারটিতে দুটি আলাদা বিস্ফোরণ ঘটে। সম্ভবত ক্ষেপণাস্ত্র হামলার কারণে এই বিস্ফোরণ ঘটেছে বলে দাবি করা হয় বিবৃতিতে। এতে ট্যাংকারটি মারাত্মক ক্ষতিগ্রস্থ হয়ে সাগরে তেল চুইয়ে পড়ছে বলে জানিয়েছে ইরানের বার্তা সংস্থা আইএসএনএ। দেশটির বার্তা সংস্থা  নুর জানিয়েছে, ট্যাংকারের সকল কর্মী নিরাপদ রয়েছে আর ট্যাংকারের অবস্থাও এখন স্থিতিশীল।

এই ঘটনার পর আন্তর্জাতিক বাজারে অপরিশোধিত তেলের দাম দুই দশমিক ৩ শতাংশ বেড়ে প্রতি ব্যারেল ৬০ দশমিক ৪৬ ডলারে বিক্রি হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাসে অপরিশোধিত তেলের দাম দুই দশমিক এক শতাংশ বেড়ে ৫৪ দশমিক ৬৯ ডলারে বিক্রি হয়েছে।

এশিয়া প্রশান্ত মহাসাগরীয় বাজার বিশ্লেষক স্টিফেন ইনস বলেন, বিকল্প সক্ষমতার অবস্থাও দুর্বল আর মধ্যপ্রাচ্যের প্রতিটি তেল ক্ষেত্রের সরবরাহ শৃঙ্খল নিয়ে দৃশ্যত উদ্বেগ রয়েছে সেকারণে ব্যবসায়ীরা সরবরাহ ঝুঁকিতে প্রতিবন্ধকতা স্থাপন করতে চাইছেন।

প্রসঙ্গত, মধ্যপ্রাচ্যে উত্তেজনার মধ্যে গত ১৪ সেপ্টেম্বর সৌদি আরবের দুই তেল স্থাপনায় হামলার ঘটনা ঘটে। ওই হামলার পর সৌদি আরবের তেল উৎপাদন অর্ধেকে নেমে আসে। ইয়েমেনের হুথি বিদ্রোহীরা হামলার দায় স্বীকার করলেও শুরু থেকেই এ ঘটনায় ইরানকে দায়ী করে আসছে সৌদি আরব। উদ্ভূত পরিস্থিতিতে ইরানের বিরুদ্ধে সামরিক ব্যবস্থা নিতে যুক্তরাষ্ট্রের দ্বারস্থ হয় রিয়াদ। কিন্তু দৃশ্যত রিয়াদের এমন দাবি প্রত্যাখ্যান করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। এরপরই নড়েচড়ে বসেন সৌদি যুবরাজ। ইরানের সঙ্গে আলোচনায় মধ্যস্থতা করতে পাকিস্তান ও ইরাকের শরণাপন্ন হন এমবিএস নামে পরিচিত সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান। এমন পরিস্থিতিতে মঙ্গলবার ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সাফ জানিয়ে দিয়েছেন রক্তপাত (ইয়েমেনে সৌদি আগ্রাসন) থামালেই কেবল রিয়াদের সঙ্গে আলোচনা হতে পারে। এরই মধ্যে শুক্রবার সৌদি উপকূলে ইরানি ট্যাংকারে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটলো।

Share the post
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply