কক্সবাজারের এক মানবিক ডাক্তার এস এম শাহেদুল ইসলাম

কক্সবাজারের এক মানবিক ডাক্তার এস এম শাহেদুল ইসলাম

সারা দেশেই যখন করোনা রোগী বেড়েই চলেছে, একের পর হাসপাতাল, ক্লিনিক রোগীদের ফিরিয়ে দিচ্ছে। সংকট দেখা দিয়েছে স্বাস্থ্য ব্যবস্থায় । সেই সংকটের বাহিরে নেই কক্সবাজারও। কক্সবাজারের আক্রান্তের অবস্থা সারাদেশের মধ্যে ৩/৪ নম্বারে। এই অবস্থায়  ডাক্তারের কাছ থেকে চিকিৎসা পাওয়া অনেকের কাছে তার উপর যেন স্রষ্টার স্পেয়াল রহমত বা সনাতনীদের কাছে সঠিক সময়ে চিকিৎসা পাওয়া ডাক্তার যেন দেবতাতুল্য।

জীবন পরিচালনা করতে এই মহামারিতে  সচেতন ব্যক্তি মাত্রই সচেতন হয়ে বাইরে যাচ্ছেন, ঘরে ফিরছেন একরাশ আতঙ্ক নিয়ে, শত সাবধানতা সত্ত্বেও যেকোনো সময় আক্রান্ত হচ্ছেন করোনা, ডেঙ্গু, চিকুনগুনিয়া ছাড়াও সাধারণ ফ্লুতে। এছাড়া অন্য রোগবালাই ত রইলই! অসুখ শব্দটি থেকে অ কেটে বাদ দিয়ে সুখ খোঁজার জন্য সেই তো যেতে হয় স্রষ্টার স্পেয়াল রহমতের আশায় বা দেবতার খুঁজে ডাক্তারের কাছেই।

নিজের প্রাণের মায়া না করে রোগীর চিকিৎসায় ঝাঁপিয়ে পড়া তেমন একজন মানবিক ডাক্তারের নাম এস এম শাহেদুল ইসলাম (শার্দুল)

কক্সবাজারের এই সন্তানের জন্ম ১৯৮৪ সালের ১৬ এপ্রিল বোয়ালখালী নানার বাড়িতে। জন্মের পরপর  কক্সবাজর পৌরসভার ১০ নং ওয়ার্ডের স্টেডিয়াম পাড়ায় চলে আসেন। প্রাথমিক শিক্ষা সম্পন্ন করেন  কক্সবাজার পিটিআই সংলগ্ন পরীক্ষন বিদ্যালয় থেকে। কক্সবাজার সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ৮ম শ্রেণির বৃত্তি পরীক্ষায় সমগ্র কক্সবাজার জেলায় ১ম স্থান লাভ করেন।কক্সবাজার সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ১৯৯৯ সালে এসএসসি তে চট্টগ্রাম বিভাগে মেধা তালিকায় ১৭তম স্থান লাভ করেন। উচ্চ মাধ্যমিক শেষ করেছেন চট্টগ্রাম কলেজ থেকে। রংপুর মেডিকেল কলেজ থেকে তিনি এমবিবিএস পাশ করেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে ঢাকা শিশু-মাতৃ স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউট থেকে শিশুরোগ বিষয়ে এমডি থিসিস সম্পন্ন করেন। ২০১৪ সালে ৩৩ তম বিসিএস এ যোগদান। মহেশখালী ও কুতুবদিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে দায়িত্ব পালনের পর বর্তমানে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে কর্মরত আছেন।

স্বাস্থ্য ব্যবস্থার এই সংকট মুহুর্তে তিনে নিয়মিত কক্সবাজার সদর হাসপাতাল এবং প্রাইভেট হাসপাতানে নিজ চেম্বারে রাত-দিন রোগীদের সেবা দিয়ে যাচ্ছেন।

করোনাভাইরাস আক্রান্ত রোগীদের জন্য ব্যবহৃত হচ্ছে কক্সবাজার সদর হাসপাতাল। সেখানে সাধারন মানুষ চিকিৎসার জন্য যেতে এখন ভয় পাচ্ছে। এ অবস্থায় তিনি ফোনে ও অনলাইনে এবং সরাসরি রোগীদের চিকিৎসা দিয়ে দুর্যোগময় মুহূর্তে দৃষ্টান্ত স্থাপন করে চলেছেন।

গরীব ও একালার রোগীদের ফ্রি চিকিৎসা এবং মধ্যবিত্তদের কাছ থেকে নামমাত্র ভিজিট নিয়ে সেবা দানের অব্যাহত রেখেছেন। অনেক সময় উল্টো অসহায় রোগীদের টাকা দিয়ে সহযোগিতা করতেও দেখা গেছেন।

তাঁর মানবিকতার দৃষ্টান্তে উপকৃত হয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অনেকের কৃতজ্ঞতা প্রকাশও লক্ষণীয়।

ডাক্তার এস এম শাহেদুল ইসলামের পিতা আলহাজ্জ্ব সিরাজুল ইসলাম তার  জন্মের আগেই আশির দশকে সাতকানিয়া থেকে কক্সবাজারে আসেন। তিনি  প্রথমে ইংরেজি ও বাংলা টাইপিস্ট হিসেবে কাজ শুরু করেন। তিনি কক্সবাজারের প্রথম বাংলা টাইপিস্ট এবং একাজে তিনি কোর্টপাড়ায় অত্যন্ত সুপরিচিত ছিলেন।

No description available.

বর্তমানে তিনি কক্সবাজারের প্রাণকেন্দ্র পানবাজারস্থ মোহাম্মদ আলী মার্কেটের একজন স্বনামধণ্য ব্যাবসায়ী (রকমারি স্টোর)। নিজস্ব বাড়ি করেছেন কক্সবাজার রহমানিয়া মাদ্রাসার পাশে।সে বাড়ি থেকে তিনি সন্তানদের লেখাপাড়া করিয়েছেন।

ডাক্তার এস এম শাহেদুল ইসলামের স্ত্রী মহেশখালী উপজেলার বড় মহেশখালীর মরহুম আলহাজ্জ্ব সিরাজুল হকের ছোট মেয়ে ও সাবেক এমপি আলমগীর ফরিদের ভাতিজি।

-thecmbd

Share the post
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply