কক্সবাজার এলও শাখার সার্ভেয়ার কেশব ও দালাল মুহিব চট্টগ্রামে আটক

মিসবাহ ইরান, চট্টগ্রাম থেকেঃ
কক্সবাজার এলএ শাখার শীর্ষ দালাল মুহিব উল্লাহ ও সাবেক সার্ভেয়ার কেশব লাল দেবকে আটক করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। শনিবার (২৩ জানুয়ারি) বিকাল ৪ টার দিকে চট্টগ্রাম জিইসি মোড়স্থ এমইএস কলেজ গেইট এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়।

আসামী মহিব উল্লাহ, পিতা – কবির আহমদ, মাতা- ছাবেকুন নাহার, নিদানিয়া,উখিয়া, কক্সবাজার তদন্তের এক পর্যায়ে বিভিন্ন ব্যক্তির একাউন্টে ভূমি অধিগ্রহণ শাখা হতে ক্ষতিগ্রস্হ ব্যক্তিগন চেক প্রাপ্ত হওয়ার পর তাদের স্ব স্ব একাউন্টে টাকা ক্যাশ বা জমা হলে তাদের একাউন্ট থেকে মহিব উল্লাহ তাৎক্ষণিক একটি নির্দিষ্ট ঘুষ বা কমিশন ৩০% বা ৫০% করে টাকা তার নিজের একাউন্টে ট্রান্সফার কর নিয়েছে।আবার কখনও নিজেই ক্যাশ উত্তোলন করে( মহিব উল্লাহ) নিজের একাউন্টে জমা করেছে।উক্ত মহিব উল্লাহ ভূমি অধিগ্রহণের এই সময়ের মাঝে বহু সম্পদের মালিকও হয়েছে।

নিম্নলিখিত ব্যক্তির একাউন্টে ভূমি অধিগ্রহণের টাকা জমা হওয়ার পর মহিব উল্লাহ কি পরিমাণ টাকা উত্তোলন করেছে বা নিজের একাউন্টে ট্রান্সফার করেছে তার একটি পরিসংখ্যান নিম্নে দেওয়া হলঃ

আসামি মহিব উল্লাহ প্রিমিয়ার ব্যাংক কক্সবাজার শাখায় জনাব আব্দুর রহিম এর একাউন্ট নং-০৫১২১৩১০০০০০১১৬ এ ভূমি অধিগ্রহণের ক্ষতিগ্রস্হ মালিক হিসেবে চেক পাস হতে না হতেই তাৎক্ষণিক ২৪/০১/১৭ ইং তারিখ ২৭,৬৪,০০০ (সাতাশ লক্ষ চৌষট্টি হাজার টাকা),০৯/০৩/১৭ ইং তারিখে ৩৩,৫৪,০০০ টাকা আসামি মহিব উল্লাহ নিজ নামীয় একাউন্ট নং- ০৫১২১৩১০০০০০০৪০ প্রিমিয়ার ব্যাংক এ উক্ত টাকা ট্রান্সফার করে নেন।ওয়ান ব্যাংক কক্সবাজার শাখা তার একাউন্ট নং- ০২৬২০৭০০০৬১২৫, হিসাব খোলার তারিখ ০৬/১২/১৮ ইং, হিসাব বন্ধেী তারিখ ২১/০৭/২০২০ ইং,লেনদেনের সময় সীমা ১ বছর ৭ মাস,এ সময়ে লেনদেনের পরিমান ১১,৯১,১০,০৯০ (এগার কোটি নিরানব্বই লক্ষ দশ হাজার নব্বই টাকা)।এ একাউন্টে বিভিন্ন সময়ে বিশাক অংকের ক্যাশ টাকা জমা হওয়া এবং বিভিন্ন ব্যক্তির টাকা উত্তোলন, বিভিন্ন একাউন্ট ট্রান্সফার বা RTGS পরিক্ষা নিরীক্ষা করে দেখা মূলত যেই তারিখ ক্যাশ টাকা জমা হয়েছে ঠিজ তার আগে ও পরে তার একটি বিশাল অংকের টাকা হয় ভূমি অধিগ্রহণ শাখার সার্ভেয়ার থেকে কানুনগো বা জেলা প্রশাসকের উর্ধতন কর্মকর্তাদের ম্যানেজ করার জন্য প্রদান করা হইয়াছে।
নিজ ও তার প্রতিষ্ঠান ইনানী এফ,টি,ডিপার্টমেন্টাল স্টোর নামে যার হিসাব নং- ০৫১২১১১০০০০০৪১৪ গত ১৫/১২/১৯ হতে ১৫/০৭/২০ ইং তারিখে মাত্র ৭ মাসে একাউন্টে জমা হয় ৩,৩৩,২৩,৫০০ (তিন কোটি তেত্রিশ লক্ষ তেইশ হাজার পাঁচশত টাকা)

আসামী মুহিব উল্লাহ এর ওয়ান ব্যাংক কক্সবাজার শাখা হতে গত ১২/০২/১৯ ইং তারিখ Midland Bank Ghulsan শাখায় ভূমি অধিগ্রহণ শাখার সার্ভেয়ার কেশব লাল দেব নিজের ও তার স্ত্রী মুক্তা রাণী দাশের একাউন্ট এ শাহজালাল ইসলামী ব্যাংক মতিঝিল শাখায় এই মুহিব উল্লাহ এর একাউন্ট হতে ০৯/০৫/১৯ ইং তারিখ ১,০০,০০০+১,০০,০০০= ২,০০,০০০ টাকা ভূমি অধিগ্রহণ শাখা নিয়ন্ত্রণ করার লক্ষ্যে এই মুহিব জেলা প্রশাসক কক্সবাজারকে০২/০৭/১৯ ইং তারিখ ৬,০০,০০০(ছয় লক্ষ টাকা),২৪/০৭/১৯ ইং তারিখ ORONODOL SCHOOL কে ৫,০০,০০ টাকাও ২৯/০৭/১৯ ইং তারিখ ৫,০০,০০০ টাকা এবং কক্সবাজার ডি.সি কলেজে ২৪/০৭/১৯ ইং তারিখে ৫,০০,০০০ টাকা ও ২৯/০৭/১৯ ইং তারিখ ৫,০০,০০০ টাকাসহ মোট ২৬,০০,০০০ (ছাব্বিশ লক্ষ টাকা) শুধু জেলা প্রশাসককে খুশি করার জন্য প্রদান করেন।

কেশব লাল দেব কক্সবাজার এলএ শাখার সাবেক সার্ভেয়ার। বর্তমানে নেত্রকোনা জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের এলএ শাখায় কর্মরত।
দুদকের একটি সূত্র জানায়, কেশব লাল দেব কক্সবাজার এলএ শাখায় থাকাকালীন সরকারের চলমান উন্নয়ন প্রকল্পকে ঘিরে ভূমি অধিগ্রহণ কাজে মুহিব উল্লাহসহ শতাধিক দালাল ও সরকারী কর্মকর্তাদের সমন্বয়ে সিন্ডিকেট করে দুর্নীতি ও নানা অনিয়মের মাধ্যমে অবৈধভাবে শতশত কোটি টাকা আয় করেছে বলে অভিযোগ উঠে।

এছাড়াও প্রিমিয়ার ব্যাংক লি কক্সবাজার শাখায় তার নমাীয় হিসাব নং- ০৫১২১৩১০০০০০০৪০ এ ০৭/০৯/১৬ হতে ২৪/১০/১৯ ইং তারিখ পর্যন্ত ২,৮৭,৭৬,৭৭৭ ( দুই কোটি সাতাশি লক্ষ ছিয়াত্তর হাজার সাতশত সাতাত্তর) টাকা এবং হিসাব নং- ০৫১২১৩১০০০০০২৫৪ এ ২০/০৮/১৭ হতে ২৪/১০/১৯ ইং তারিখ পর্যন্ত ৫,৫১,৮১,৭৫০ (পাঁচ কোটি একান্ন লক্ষ একাশি হাজার সাতশত পঞ্চাশ) টাকা জনা প্রদান কর হয়েছে।
যেখানে অস্বাভাবিক ও সন্দেহজনক লেনদেন পরিলক্ষিত হয়েছে।

Share the post
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply