করোনায় কক্সবাজার সিটি কলেজ ছাত্রীর মৃত্যু, রেখে গেলেন সদ্যোজাত শিশু

আজ শনিবার (১৭ জুলাই) ভোরে কোভিড-১৯ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে জারিন তাসমীন মুন্নী কক্সবাজার সিটি কলেজে স্নাতকের ছাত্রী জারিন তাসমীন মুন্নী মৃত্যুবরণ করেছেন।

জানা যায়, সন্তান সম্ভবা তরুণী কক্সবাজার সিটি কলেজের ছাত্রী জারিন তাসমীন মুন্নী (২২) কোভিড-১৯ পজিটিভ হয়ে কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন। জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষনে শুক্রবার মধ্যরাতে চিকিৎসকদের আপ্রাণ প্রচেষ্টায় ঝুঁকিপূর্ণ অপারেশনে জন্ম দিলেন ফুটফুটে এক পুত্রসন্তান। আজ শনিবার ভোর ৫ টার দিকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান তিনি। শিশু সন্তানটি বর্তমানে হাসপাতালের নবাজতক ওয়ার্ডে রয়েছে।

আরও জানা যায়, গত বুধবার (১৪ জুলাই) তীব্র শ্বাসকষ্ট নিয়ে কক্সবাজার শহরের একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি হন জারিন তাসমীন মুন্নী। অবস্থার অবনতি হলে বৃহস্পতিবার (১৫ জুলাই) তাকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালের আইসিইউতে ভর্তি করা হয়। আজ ১৭ জুলাই (শনিবার) ভোরেই তিনি মৃত্যুবরণ করেন।

জারিন তাসমীন মুন্নীর স্বামী শাহাদাৎ হোসেন বিপু। তিনি উখিয়ার রত্নাপালং ইউনিয়নের খোন্দকার পাড়া গ্রামের অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক সিরাজুল ইসলামের ছেলে। শাহাদাৎ হোসেন বিপুর সাথে মাত্র বছর খানেক আগে বিয়ে হয়েছিল মুন্নীর। বিপু একটি বেসরকারি সংস্থায় চাকরি করেন।

জারিন তাসমীন মুন্নী কক্সবাজার সিটি কলেজে স্নাতকের ছাত্রী ছিলেন। তার পিতা অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক আব্দুল লতিফ উখিয়ার হলদিয়া পালং ইউনিয়নের কোলেসা পাড়ার বাসিন্দা।

তার মৃত্যুতে সর্বত্র শোকের ছায়া নেমে এসেছে।
কক্সবাজারের জ্যেষ্ঠ সাংবাদিক তোফায়েল আহমেদ ফেসবুক স্ট্যাটাসে লিখেছেন, ‘একটু বিলম্বিত কোভিড টেস্টের কারণে কি রকম সর্বনাশ হতে পারে এটিই তার উদাহরণ। মুন্নীর এমন ভয়াবহ অবস্থা ছিল যে,তাকে হাসপাতালে আনার সাথে সাথেই আইসিইউতে অক্সিজেনের উপর রাখতে হয়েছে। এমনকি ঘন্টায় ৮০ লিটার অক্সিজেন দিতে হয়েছে তাকে।

Share the post
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply