কাউকে ছোটো করে দেখতে নেইঃ শাহাদাত – bdnews24.com

[ad_1]

প্রশ্নঃ অনুর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে খেলেছেন ব্যাটসম্যান হিসেবে, এখানে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে প্রস্তুতি ম্যাচে আট ওভারের স্পেল করলেন, পেলেন তিন উইকেট। নিজেকে নতুন পরিচয়ে খুঁজে পেলেন?

শাহাদাত হোসেনঃ আসলে বিশ্বকাপে আমাদের বোলারের অনেক অপশন ছিল। চার জন মূল বোলার ছিল, আবার দুইজন পার্টটাইম বোলার ছিল। এক্ষেত্রে ছয়জন বোলারই ব্যবহার করা হতো, ছয় জনই ভালো করত। যদি কেউ খারাপ করত তাহলে আমার বোলিং করার সুযোগ আসত। কেউ খারাপ করেনি, আমার বোলিংয়ে আসাও হয়নি।
 
আর বিশ্বকাপে বোলিং করিনি, এখানে বোলিং করে উইকেট পাওয়ায় মনে হয় আত্মবিশ্বাসটা বাড়বে। এমন বোলিং যেন চালিয়ে যেতে পারি, সেই চেষ্টা থাকবে।
 
প্রশ্নঃ বোলিং করে কী মনে হয়েছে, জিম্বাবুয়ে স্পিনে দুর্বল? ওদেরকে কী শনিবার শুরু হতে যাওয়া টেস্টে স্পিন দিয়ে হারানো সম্ভব?

শাহাদাতঃ আসলে দেখেন, ওরা কিন্তু পেসও অতো ভালো খেলেনি। দুই দিকেই খারাপ করেছে। হয়তো আমরা স্পিনে উইকেট নিয়েছি, তাই বলে বলা যাবে না ওরা স্পিনেই খারাপ খেলে। উইকেটটা ব্যাটসম্যানের পক্ষেই ধরতে পারেন। পেসারদের জন্য কম সুবিধা ছিল। বাংলাদেশে সাধারণত সব সময়ই স্পিন ভালো হয়। এক্ষেত্রে একটু সুবিধা পেয়েছি আমরা স্পিনাররা।
 
প্রশ্নঃ জিম্বাবুয়ে দলকে প্রতিপক্ষ হিসেবে কেমন মনে হলো?

শাহাদাতঃ ওরা আগে যেমন ছিল আমার কাছে ওইরকমই লেগেছে। আমি বলব প্রতিপক্ষ যেমনই হোক সবার সঙ্গে একই মানসিকতা নিয়ে খেলা উচিত। কাউকে ছোটো করে দেখতে নেই।
 
প্রশ্নঃ শেষ খেলেছেন অনুর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে, এরপর বিশ্রাম পেলেন স্বল্প দিনের। আবার খেলার সুযোগ হয়েছে, কেমন অনুভব করছেন?

শাহাদাতঃ আমাদের কাজই কিন্তু এটা। হ্যাঁ, বিশ্রাম যেমন দরকার, খেলাটাও দরকার। বেশি বিশ্রামের সময় পাইনি সত্যি। কিন্তু আমরা মনে করি, এটাই আমাদের কাজ। এখানে ভালো খেললে সামনে এগিয়ে যাওয়া সহজ হবে।
 
প্রশ্নঃ এক স্পেলে আট ওভার বোলিং করে তিন উইকেট নিয়েছেন, ওই স্পেল নিয়ে কিছু বলেন?

শাহাদাতঃ আমি শুধু আমার সহজাত বোলিংটা করেছি, বেশি কিছু না। আমাকে অধিনায়ক যখন বোলিংয়ে ডেকেছে, তখন আমাদের পরিকল্পনাই ছিল ডট বল করা। কারণ ওরা তখন একটু দ্রুত রান করছিল, উইকেটও পড়ছিল না। সবাই বলছিল ডট বল করলে ওরা এমনিই উইকেট দিয়ে দিবে। আমার চিন্তা ছিল আমি ডট বল করব, উইকেট এমনিই চলে আসবে।
 
প্রশ্নঃ এতদিন খেলেছেন বয়সভিত্তিক পর্যায়ে, এখন আন্তর্জাতিক একটা দলের বিপক্ষে খেলার সুযোগ পেলেন। অভিজ্ঞতা, অনুভূতি কেমন?

শাহাদাতঃ হ্যাঁ, অভিজ্ঞতা সব সময়ই হচ্ছে। এখন বড় দলের সঙ্গে খেললাম, সব একই লাগছে। আমি যদি আমার প্রসেসের মধ্যে থাকি সবকিছুই সিম্পল লাগে।



[ad_2]

Source link

Share the post
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply