কিশোরগঞ্জে নামাজে সেজদারত অবস্থায় নারীর মৃত্যু

কাটিয়াদী, কিশোরগঞ্জ : কিশোরগঞ্জের কটিয়াদী শারমিন ডায়াগনস্টিক সেন্টারে চিকিৎসা সেবা নিতে আসা হোসনে আরা (৫৫) নামের এক মহিলা আজ শুক্রবার যোহরের নামাজে সেজদারত অবস্থায় মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন। তিনি উপজেলা মুমুরদিয়া ইউনিয়নের ধনকীপাড়া গ্রামের মাহবুবুর রহমানের স্ত্রী এবং কটিয়াদী পৌর এলাকার ঐতিহ্যবাহী রইছ মাহমুদ উচ্চ বিদ্যালয়ের অভিভাবক প্রতিনিধি ও সাবেক ছাত্রনেতা নুরুল ইসলাম সংগ্রামের বড়বোন।

হোসনে আরার ছোটভাই রইছ মাহমুদ উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক নুরুল হক সংগ্রাম মিডিয়াকে জানান, “আমার বড় বোন হোসনে আরা ২০১৪ সাল থেকে ডায়াবেটিস রোগে আক্রান্ত। তিনি প্রতিমাসে ডাক্তার দেখানোর জন্য কটিয়াদীতে শারমিন ডায়াগনস্টিক সেন্টারে আসতেন। আজও তিনি ডাক্তার দেখানোর জন্য এসে সিরিয়ালে নাম লেখান। ডাক্তার জুমার নামাজ পড়তে মসজিদে চলে গেলে আমার বোন ডায়াগনস্টিক সেন্টারের এক কক্ষে নামাজ পড়ার সময় সেজদারত অবস্থায় মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন। ডায়াগনস্টিক সেন্টারের লোকজন কটিয়াদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।”

শারমিন ডায়াগনস্টিক সেন্টারে কর্মরত হালিমা খাতুন জানান, “তিনি একজন ধার্মিক মহিলা ছিলেন। ডাক্তার দেখাতে আসলেও তিনি কখনও মুখের নেকাব খুলতেন না। আমি দুপুরের খাবার খাওয়ার সময় তিনি আমার পাশেই নামাজ পড়ছিলেন। সেজদারত অবস্থায় তার দেহ কাঁপতে কাঁপতে তিনি পড়ে যান।”

তিনি স্বামী, দুই ছেলে, পাঁচ মেয়ে রেখে গেছেন। তার আত্মার মাগফেরাতের জন্য তার পরিবার সকলের দোয়া প্রার্থী।

Share the post
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply