কোভিড-১৯: চট্টগ্রামে আক্রান্তের সংখ্যা ৭ হাজার ছাড়ালো

চট্টগ্রামঃ

চট্টগ্রাম মহানগরী ও জেলায় করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ৭ হাজার ছাড়িয়ে গেছে।

বৃহস্পতিবার নতুন করে ২৪১ জন আক্রান্ত যোগ হয়ে চট্টগ্রামে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৭২২০ জনে।

বৃহস্পতিবার (২৫ জুন) সকালে চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বি এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

সিভিল সার্জন জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় চট্টগ্রাম নগরী ও জেলার বিভিন্ন উপজেলায় সর্বমোট ৯৭১ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ২৪১ জনের দেহে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। এদের মধ্যে ১৯২ জন মহানগর এলাকায় এবং ৪৯ জন বিভিন্ন উপজেলার বাসিন্দা। এছাড়া একই সময়ে মৃত্যুবরণ করেছে ২ জন। মোট মৃত্যু ১৫৫ জন।

ল্যাবভিত্তিক করোনা আক্রান্তের পরিসংখ্যান জানিয়ে সিভিল সার্জন জানান, চট্টগ্রামের করোনাভাইরাস পরীক্ষার প্রধান ল্যাব নগরীর ফৌজদারহাটের বিআইটিআইডি হাসপাতাল ল্যাবে ২৭৫ জনের নমুনা পরীক্ষায় ৪৮ জনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়। এর মধ্যে ৩৯ জন নগরের ও ৯ জন উপজেলা পর্যায়ের বাসিন্দা।

চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি ইউনিভার্সিটির (সিভাসু) ল্যাবে ১০০ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৯ জনের করোনা মিলেছে। এর মধ্যে ৪ জন নগরের ও ৫ জন বিভিন্ন উপজেলার বাসিন্দা।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ল্যাবে ১৪১ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৪২ জনের করোনা শনাক্ত হয়। এদের  মধ্যে নগরের ২০ জন ও বিভিন্ন উপজেলার ২২ জন রয়েছে।

চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ ল্যাবে বুধবার ৩৪৯ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৯৪ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এদের মধ্যে ৮৫ জন নগরের ও ৯ জন উপজেলার বাসিন্দা রয়েছেন।

চট্টগ্রামের বেসরকারি ইম্পেরিয়াল হাসপাতাল ল্যাবে ৯৫ জনের নমুনা পরীক্ষা করে মহানগরীর এলাকার ৪৪ জন ও উপজেলার দুইজনের করোনা শনাক্ত হয়েছে।

অন্যদিকে, কক্সবাজার মেডিক্যাল কলেজ ল্যাবে চট্টগ্রামের ১১টি নমুনা পরীক্ষা করে উপজেল পর্যায়ে দুই জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে।

উপজেলা পর্যায়ে নতুন শনাক্ত ৪৯ জনের মধ্যে লোহাগাড়ার জন, সাতকানিয়ার ২, বাঁশখালীর ৩, পটিয়ার ৭, রাঙ্গুনিয়ার একজন, রাউজানের ১৪, ফটিকছড়ির ৪, হাটহাজারীতে ৭, মিরসরাইয়ের একজন, সন্দ্বীপে একজন ও সীতাকুণ্ডের ৮ জন শনাক্ত হয়েছে।

চট্টগ্রামে গত ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতাল থেকে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১৬ জন। বৃহস্পতিবার সকাল পর্যন্ত চট্টগ্রামে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৭২২০ জন হয়েছে।

Share the post
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply