চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তিযুদ্ধ কাল থেকে, নেয়া হয়েছে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা

সিবিএল২৪ :

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) ২০১৯-২০ সেশনের স্নাতক প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষা শুরু হতে যাচ্ছে আগামীকাল রবিবার। যা চলবে ৩১ অক্টোবর পর্যন্ত। এ ভর্তি পরীক্ষাকে কেন্দ্র করে নিরাপত্তার প্রতি কঠোর নজর দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। প্রায় হাজার খানেক আইন শৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যেদের  বেষ্টনী দ্বারা আবৃত থাকবে কেন্দ্রগুলো।

এছাড়াও ছাত্রসংগঠনগুলোর মিছিল মিটিংয়ে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। নিষেধাজ্ঞা রয়েছে ক্যাম্পাসের অভ্যন্তরে পোস্টার লাগানো, ব্যানার টাঙানো, লিফলেট বিতরণ, দেয়ালে চিকামারা, বুথ বসানো, সকল ধরনের নোট, শিট, সাজেশন ও মডেল টেস্ট বিক্রয়ে।

এদিকে, ভর্তি জালিয়াতি রোধে আইসিটি সেলের অধীনে থাকবে একটি এন্টিপ্রক্সি টিম।

নজরদারি বাড়ানো হয়েছে পূর্বের অভিযুক্তদের উপরও। র‍্যাগিং প্রতিরোধে বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টরিয়াল বডির ‘সিইউ স্টুডেন্ট কমপ্লেন সেল’ নামক একটি ওয়েবপেজ চালু করেছে। ২৪ অক্টোবর ভর্তি পরীক্ষা সংক্রান্ত সাংবাদিকদের সাথে এক মতবিনিময় সভায় এসব বিষয় জানান বিশ্ববিদ্যালয় কতৃপক্ষ।

তারা আরো জানান, ভর্তি পরীক্ষার সময় পুলিশ, র‍্যাব, ডিবি, ডিএসবিসহ সাত শতাধিক আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য নিরাপত্তায় নিয়োজিত থাকবেন। এছাড়া ভর্তি জালিয়াতি ঠেকাতে ডিজিএফআই, এনএসআই গোয়েন্দা সংস্থা এবং হাটহাজারী উপজেলা প্রশাসন পরিচালিত ভ্রাম্যমাণ আদালত মাঠে থাকবেন।

পাশাপাশি বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব নিরাপত্তা বাহিনীর ১২০ জন সদস্য নিয়োজিত থাকবেন বলেও জানিয়েছেন কতৃপক্ষ।  

বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর রেজাউল করিম বলেন, ভর্তি পরীক্ষাকে কেন্দ্র করে  ক্যাম্পাসে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিশ্চিত করা হয়েছে। এছাড়া প্রক্টরিয়াল বডির সদস্যদের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে দায়িত্বে থাকবে । ভর্তি পরীক্ষা চলাকালে ছাত্রসংগঠনগুলোর মিছিল মিটিংয়ে নিষেধাজ্ঞা থাকলেও ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীদের সহযোগিতা করতে পারবে তারা।

তিনি আরো বলেন,  বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থায়ী ও অস্থায়ী সকল হোটেল ও খাবারের দোকানে নির্ধারিত মূল্যের তালিকা সাঁটানো বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। একইসাথে এবছর ভর্তি পরীক্ষা চলাকালে ক্যাম্পাসের ভেতরে সকল ধরনের যান চলাচল নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

ভর্তি পরীক্ষা কমিটির সদস্য সচিব এসএম আকবর হোছাইন বলেন, প্রশ্নফাঁসসহ ভর্তি পরীক্ষা সংক্রান্ত সকল অভিযোগ কেন্দ্রে প্রবেশের এক ঘণ্টা পূর্বে লিখিতভাবে ইউনিট কো-অর্ডিনেটরকে জানাতে হবে। নেকাব এবং বোরখা পরিহিত ছাত্রীরা মুখমণ্ডল ও কান প্রদর্শন করতে হবে। পরীক্ষা কেন্দ্রে মোবাইল, স্মার্ট ঘড়িসহ যাবতীয় ইলেক্ট্রনিক্স ডিভাইস নিষিদ্ধ করা হয়েছে। পরীক্ষার্থীদের শনাক্তকরণের ক্ষেত্রে অ্যান্টি প্রক্সি অ্যাপস ব্যবহার করবেন দায়িত্বরতরা।

তিনি আরো বলেন, পরীক্ষার দিন সকাল ৮টায় হল প্রভোস্টরা প্রত্যেকটি হল পরিদর্শন করবেন। ভর্তি পরীক্ষার ৪৮ ঘণ্টা আগে আসন বিন্যাস ওয়েব সাইটে জানিয়ে দেওয়া হবে। পরীক্ষার্থীরা প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সত্যায়িতকরণে বাধ্যবাধকতা নেই।

তিনি বলেন, দূর-দূরান্ত থেকে আসা ছাত্রী ও মহিলা অভিভাবকদের জন্য সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত শেখ হাসিনা হলে বিশ্রাম ও ওয়াশরুম ব্যবহারের ব্যবস্থা করা হয়েছে। এছাড়া অভিভাবকদের জন্য বাংলাদেশ ডাক বিভাগের ডিজিটাল লেনদেনের প্লাটফর্ম ‘নগদ’ এর স্পন্সরে ক্যাম্পাসের বিভিন্ন স্থানে ছাউনি এবং পরীক্ষা কেন্দ্রের বাহিরে প্যান্ডেলের ব্যবস্থা করা হবে।  

চিরসবুজের মাঝে মানুষের পদচারণায় মুখরিত চবি ক্যাম্পাস

চবির ভর্তি পরীক্ষার তারিখ
‘বি’ ইউনিট ২৭ অক্টোবর, ‘ডি’ ইউনিট ২৮ অক্টোবর, ‘এ’  ইউনিট ২৯ অক্টোবর, ‘সি’ ইউনিট ৩০ অক্টোবর এবং ‘বি ১’ ও  ‘ডি ১’ উপ-ইউনিট এর ভর্তি পরীক্ষা ৩১ অক্টোবর ২০১৯ অনুষ্ঠিত হবে।

উল্লেখ , এবছর ভর্তি পরীক্ষায় চারটি ইউনিট ও দুইটি উপ-ইউনিটের মোট ৪ হাজার ৯২৬টি আসনের বিপরীতে ১ লাখ ৬৬ হাজার ৮৭০ জন ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার কথা রয়েছে। এবার ভর্তি পরীক্ষার্থীর সংখ্যা আগের তুলনায় ৩০ হাজার বেশি হওয়ায় বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের বাইরে দুটি ইউনিটের পরীক্ষা পাশ্ববর্তী হাটহাজারী সরকারি কলেজে অনুষ্ঠিত হবে।

Share the post
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply