দুর্নীতিতে ভরপুর মহেশখালীর সেবামূলক প্রতিষ্ঠান গুলো।

এস.এম রুবেলঃ
মহেশখালী ভূমি অফিসে দুদকের অভিযানে কানুনগো’কে আটকের ঘটনায় Facebook এ বাহ্বা, অভিনন্দন প্রদান সহ প্রশংসার ঢল নেমেছে। এখানে প্রশংসার কিছু দেখছিনা। দুদক শুধুমাত্র তাদের উপর অর্পিত দায়িত্ব পালন করেছে। এতে ধন্যবাদ পাওয়ার মত কিছু করেনি।

আচ্ছা, ভূমি অফিসে কানুনগোর ভূমিকা, ক্ষমতা সহ কাজের গন্ডি কতটুকু…? কানুনগোর উপরে নীচে পর্যায়ক্রমে অনেক পদবীধারী কর্তকর্তা-কর্মচারী রয়েছে। তারা কি এতই ইনোসেন্ট…? প্রচলিত গোপন নিয়মটি এমনই, কানুনগো ঘুষ খাচ্ছে, আবার সেও ঘুষ দিচ্ছে, তাকে ব্যবহার করে অন্য কেউ ঘুষের টাকা নিচ্ছে। কই, ওনাদের কোন তথ্য প্রকাশ হলোনা। বরং বেচারা ঘুষখোর কানুনগো দুদকের জালে আটকে পড়লো।

ভূমি অফিস ছাড়াও মহেশখালীতে আরো ৩টি গুরুত্বপূর্ণ সরকারী অফিস রয়েছে। এই অফিস গুলো ভূমি অফিসের চেয়েও জনগুরুত্বপূর্ণ সেবামূলক প্রতিষ্ঠান। সেবার আদলে চলা এই অফিস গুলোতে যে হারে দুর্নীতি হচ্ছে তা কৌশলে সবার অগোচরে থেকে যাচ্ছে। আর অপ-কৌশলের সঠিক ব্যবহারে এসব প্রতিষ্ঠানের অধিকাংশ কর্মকর্তা-কর্মচারীগণও কানুনগোর মতো দুর্নীতি করে যাচ্ছে।

তাই অভিনন্দন নয়, স্ব-স্ব অবস্থান থেকে চেষ্টা করুন যাতে অন্যান্য সরকারী অফিস গুলোতেও দুদকের অভিযান পরিচালিত হয়। আর দুর্নীতিবাজ আমলাগণের মুখোশ উন্মোচিত হয়।

Share the post
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply