দূষণকারী মাতারবাড়ির কয়লা ভিত্তিক বিদ্যুৎ নয়, বন্ধ করতে গ্লোবাল কলে যোগ দিন

সিবিএল২৪ ডেস্কঃ

বাংলাদেশে জাপানি কয়লা ফিনান্স বন্ধ করার গ্লোবাল কলে যোগ দিন!

গুগল থেকে সংগৃহিতঃঃ মাতারবাড়ির কয়লা বিদ্যুৎ প্রকল্পের নকশা

জাপানি আর্থিক ও কয়লা ভিত্তিক প্রতিষ্ঠানগুলো বাংলাদেশের ওপর যখন তিনটি নতুন কয়লা বিদ্যুৎকেন্দ্র চাপিয়ে দিচ্ছে ঠিক তখনি শতাব্দীর ভয়ঙ্করতম ঝড়টি বাংলাদেশে আঘাত হানে। তাদের এ প্রকল্পগুলো বাংলাদেশের আবহাওয়া ও জলবায়ু পরিবর্তনে গুরুতর প্রভাব ফেলবে।

বাংলাদেশের দক্ষিণ-পূর্ব উপকূলের দূরবর্তী অঞ্চলে অবস্থিত মাতারবাড়ি দ্বীপের বাসিন্দারা এখনো সুপার সাইক্লোন আম্ফানের ক্ষয়ক্ষতি কাটিয়ে ওঠার চেষ্টা করছেন। এই ঘূর্ণিঝড় বিশ লক্ষেরও বেশি মানুষের ঘরবাড়ি ধ্বংস করেছে। তবে ঘূর্ণিঝড় ছাড়াও দ্বীপের বাসিন্দাদেরকে লড়তে হচ্ছে বিশাল কয়লা বিদ্যুৎ প্রকল্পের বিরুদ্ধে, যা প্রতিনিয়ত তাদের জীবন-জীবিকাকে হুমকির মুখে ফেলছে। জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে ইতোমধ্যেই দুঃসহ হয়ে ওঠা আবহাওয়ার আরো অবনতি ঘটাবে এ বিদ্যুৎ প্রকল্পগুলো।                 

জাপান আন্তর্জাতিক সহযোগিতা সংস্থা (জাইকা), নিপ্পন এক্সপোর্ট অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট ইন্স্যুরেন্স (নেক্সি), সুমিতোমো মিতসুই ব্যাংকিং কর্পোরেশন (এসএমবিসি) ও সুমিতোমো কর্পোরেশন – এই প্রতিষ্ঠানগুলো মোট ৩,১০০ মেগাওয়াট ক্ষমতা সম্পন্ন প্রস্তাবিত তিনটি নতুন কয়লা বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণের লক্ষ্যে কাজ করে চলেছে। এ প্রকল্পগুলো:

  • ইতোমধ্যেই বহুসংখ্যক স্থানীয় বাসিন্দাকে বাস্তুচ্যুত করেছে, তাদের জীবন-জীবিকা ধ্বংস করেছে। এমনকি সেখানে কাজ করা শ্রমিকদের অধিকারও লঙ্ঘন করেছে।
  • সক্রিয় থাকাকালীন বায়ু দূষণের মাত্রা বাড়িয়ে হাজারো মানুষের মৃত্যু ঘটাবে।
  • সক্রিয় থাকাকালীন কার্বন নিঃসরণের মাধ্যমে ইতোমধ্যেই হুমকির মুখে থাকা বাংলাদেশের ওপর জলবায়ুর বিরূপ প্রভাব বাড়াবে।
  • স্বয়ং জাইকা, এসএমবিসি ও সুমিতোমোর জলবায়ু নীতিরই লঙ্ঘণ করছে।

উপরোক্ত স্বাস্থ্য, মানবাধিকার ও জলবায়ু প্রভাব বিবেচনা করে জাইকা, নেক্সি, এসএমবিসি ও সুমিতোমোর উচিত অবিলম্বে মাতারবাড়ির প্রকল্পগুলো থেকে প্রত্যাহার করা। 

Share the post
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply