ধুঁকতে ধুঁকতে ২০০ পার

[ad_1]

দারুণ খেলতে থাকা লিটন দাস ফিরে গেলে বাংলাদেশের শেষ আশাও শেষ হয়ে যাওয়ার উপক্রম হয়েছিল। ক্রিজে থাকা মোহাম্মদ মিঠুনের সঙ্গে স্বীকৃত ব্যাটসম্যান বলতে যে তিনিই ছিলেন। তবে স্বস্তির খবর হলো, লিটন ফেরার পর তাইজুল ইসলাম আরো একবার ব্যাটসম্যানের মতো দলকে ভরসা দিচ্ছেন।

সপ্তম উইকেটে মোহাম্মদ মিঠুনকে দারুণ সঙ্গ দিচ্ছেন মূলত বোলার হিসেবে একাদশে খেলা তাইজুল। এই যুগলের দৃঢ়তায় দুইশ পার করেছে ধুঁকতে ধুঁকতে এগিয়ে যাওয়া বাংলাদেশ। ১৯ ওভারের জুটিতে মিঠুন-তাইজুল অবিচ্ছিন্ন আছেন ৩৯ রানে। মিঠুন ৪২ আর তাইজুল ১৭ রানে অপরাজিত। এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত বাংলাদেশের সংগ্রহ ৬ উইকেটে ২০০ রান।

পাকিস্তানের রাওয়ালপিন্ডিতে শুক্রবার শুরু হয়েছে বাংলাদেশ ও পাকিস্তানের মধ্যকার দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজের প্রথম ম্যাচ। সকালবেলা টসে হেরে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই দলীয় ৩ রানের মাথায় দুই ওপেনার সাইফ হাসান ও তামিম ইকবালকে হারায় বাংলাদেশ।

দলের দুঃসময়ে নাজমুল হোসেন শান্তকে নিয়ে বিপর্যয় সামাল দেন মুমিনুল হক। কিন্তু বিপদটা না কাটতেই দলীয় ৬২ রানের মাথায় শাহীন আফ্রিদির বলে উইকেটরক্ষক রিজওয়ানকে ক্যাচ দিয়ে বসেন টাইগার অধিনায়ক (৩০)।

অধিনায়কের বিপদের পর ধাক্কা সামাল দেন শান্ত ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। দুজনের সাবধানী ব্যাটিংয়ে মধ্যাহ্ন বিরতির আগে ৩ উইকেট হারিয়ে ৯৫ রান তুলে বাংলাদেশ। ওই সময় ফিফটি থেকে মাত্র ৬ রান দূরে ছিলেন শান্ত।

ফিফটি ছুঁইছুঁই অবস্থায় মধ্যাহ্ন বিরতিতে গিয়েছিলেন নাজমুল হোসেন শান্ত। কিন্তু বিরতির ঠিক পরের ওভারেই বিদায় নিতে হয় তাকে। পাকিস্তানি পেসার মোহাম্মদ আব্বাসের করা ওই ওভারের পাঁচ বল ঠিকঠাক সামলালেও শেষ বলে ধৈর্য হারিয়ে বসেন শান্ত। অফ স্ট্যাম্পের অনেকটা বাইরের বলে অযথা শট খেলতে গিয়ে উইকেটরক্ষক মোহাম্মদ রিজওয়ানের হাতে ক্যাচ তুলে দেন তিনি।

শাহীন শাহ আফ্রিদি যেন বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের জন্য ক্রমেই দুর্বোধ্য হয়ে উঠছেন। দলীয় ১০৭ রানে তার বলে স্লিপে ক্যাচ দিয়ে ফিরেছেন বাংলাদেশ স্কোয়াডের অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ (২৫)।

রিয়াদ ফেরার পর ৫৪ রানের জুটি গড়েন মোহাম্মদ মিথুন ও লিটন দাস। দলের রান যখন ১৬১ তখন এলবিডব্লিউ হয়ে ফিরেছেন লিটন। অবশ্য আম্পায়ার প্রথমে আউট দেননি। কিন্তু পাকিস্তান রিভিউ নিলে ফিরতে হয় লিটনকে। তিনি করেছেন ৩৩ রান।



[ad_2]

Source link

Share the post
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply