নদীগর্ভে বিলিন হওয়ার পথে সোনার পাড়ার উত্তরাংশ, ধীরে ধীরে হারিয়ে যাচ্ছে জৌলুস।

মোহাম্মদ হোসেন, উখিয়া:

উখিয়া উপজেলার প্রাকৃতিক নৈসর্গিক সমুদ্র উপকূলীয় জালিয়াপালং ইউনিয়নের ঐতিহ্যবাহি উত্তর সোনারপাড়া গ্রাম বিগত কয়েকবছর ধরে রেজু নদীর ভাঙনের দরুণ ধীরে ধীরে নদী গর্ভে বিলিন হয়ে যাচ্ছে। উত্তর সোনারপাড়া গ্রামের অধিকাংশ জমি নদীগর্ভে বিলীন হওয়ায় অনেকেই তাদের বসতভিটা ও ফসলি জমি চিহ্নিত করতে পারছেনা। ফলে ঐতিহ্যবাহি সোনার পাড়া গ্রামের উত্তরাংশ হারিয়ে ফেলছে তার জৌলুস।

রেজু নদীর ভাঙন।

স্থানীয়দের ভাষ্যমতে, প্রায় ৮০০ পরিবারের বসবাস এ এলাকায়। নদী ভাঙনের ফলে জোয়ারের সময় সাগরের লবণাক্ত পানি সরাসরি ফসলি জমিতে প্রবেশ করে জমির উর্বরতা নষ্ট করছে প্রতিদিন। ফলে জমিগুলো দিনদিন চাষাবাদের অনুপযোগী হয়ে পড়ছে। ফসলা জমিতে লবণাক্ততা বৃদ্ধির সাথে সাথে এলাকার নলকুপের পানিতেও লবনাক্ততার পরিমাণ বৃদ্ধি পাচ্ছে তুলনামূলকভাবে। রেজু ব্রীজের দক্ষিণ তীর ঘেঁষে সোনারপাড়া বাজারে যাওয়ার যে রাস্তাটি রয়েছে সেটার অস্থিত্বও এখন হুমকির সম্মুখীন।

রেজু গর্ভে থলিয়ে যাচ্ছে ফসলি জমি।

রেজু নদীর তীরে অবস্থিত ঐতিহ্যবাহী এই গ্রামে রয়েছে উচ্চ বিদ্যালয়, দাখিল মাদ্রাসা ও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়সহ আরো অনেক গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা। রেজু নদীতে বেড়িবাঁধ না থাকায় স্কুল-মাদ্রাসায় অধ্যয়নরত ছাত্র-ছাত্রীদের কয়েক কিলোমিটার এবড়ো থেবড়ো ভঙ্গুর পথ পায়ে হেঁটে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে যাতায়াত করতে হয় বলে অভিভাবকগণ সবসময় চিন্তিত থাকেন। এ ব্যাপারে জালিয়াপালং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নুরুল আমিন চৌধুরীর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান একটি বেড়িবাঁধের জন্য পানি উন্নয়ন বোর্ডে আবেদন করা হলেও এখনো পর্যন্ত কোন সাড়াশব্দ মেলেনি।
রেজু নদীতে যতদিন বেড়িবাঁধ নির্মাণ করা হবে না ততদিন অত্র এলাকার মানুষের দুঃখ গুছাবেনা বলে জানিয়েছেন স্থানীয় জনসাধারণ।
এবং এ সমস্যা সমাধানের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে তড়িৎ ব্যবস্থা নেয়ার অনুরোধও জানিয়েছেন ভুক্তভোগী স্থানীয় জনসাধারণ।

Share the post
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply