নববধূকে ধর্ষণে ব্যর্থ হয়ে প্রতিবন্ধী যুবককে কুপিয়ে হত্যা

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর : ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলায় নববধূকে ধর্ষণ করতে গিয়ে ধরা পড়ে ইমাম হোসেন (২৫) নামে এক বখাটে। পরে তার লোকজন ক্ষিপ্ত হয়ে হামলা চালিয়ে সফিকুল ইসলাম (২২) নামের এক প্রতিবন্ধী যুবককে কুপিয়ে হত্যা করে।

গতকাল বৃহস্পতিবার (১৪ নভেম্বর) রাতে ব্রা বাসুদেব ইউনিয়নের বৈষ্টবপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় প্রতিপক্ষের হামলায় নারীসহ অন্তত ১০ জন আহত হয়েছে। নিহত যুবক আখাউড়া উপজেলার ভবানীপুর গ্রামের বাসিন্দা মৃত আব্দুল কাদির মিয়ার ছেলে।

জানা গেছে, বৈষ্টব পুর গ্রামের রুবেল (২২) প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিতে বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে ঘর থেকে বের হয়। এ সুযোগে গ্রামের বখাটে যুবক ইমাম হোসেন ঘরে প্রবেশ করে রুবেলের স্ত্রী নববধূ সুমাইয়া আক্তারকে ধর্ষণের চেষ্টা করে। গৃহবধূর চিৎকারের তার স্বামীসহ বাড়ির লোকজন ছুঁটে এসে ইমামকে আটক করে।

পরে ইমাম হোসেনের লোকজন খবর পেয়ে দা, লাঠিসহ দেশিয় অস্ত্র-সস্ত্র নিয়ে রুবেলের বাড়িতে অতর্কীত ভাবে ওই গ্রামের কাউছার, শাহীন বেগ, জাকির, ভূইয়া শাহীন, শাহজাহান, আনোয়ার, মনির চৌধুরী, ছাইদুল ও ইমাম হোসেন হামলা চালায়।এসময় কুপিয়ে সফিকুল ইসলামকে হত্যা করে।

ওই হমলায় সিরাজ, মাহমুদ ও আশিকের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাদেরকে ঢাকায় উন্নত চিকিৎসার জন্য নেয়া হয়েছে বলে পরিবারের লোকজন জানিয়েছেন।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানার পুলিশ পরিদর্শক (অপারেশন) মো. সেলিম বলেন, রাত থেকেই ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন আছে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে।

Share the post
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply