ন্যাটো জোটের হুমকির মধ্যেই তাইওয়ানে চীনের জঙ্গি বিমান

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

চীনের সামরিক কর্মকাণ্ড নিয়ে ন্যাটোর জোট নেতারা দেশটিকে সতর্ক করার মধ্যেই তাইওয়ানের আকাশসীমায় রেকর্ড সংখ্যক যুদ্ধবিমান উড়িয়েছে বেইজিং। মঙ্গলবার (১৫ জুন) চীনের ২৮টি অত্যাধুনিক জঙ্গিবিমান তাইওয়ানের এয়ার ডিফেন্স আইডেনটিফিকেশন জোনে অনুপ্রেবেশ করে। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি বুধবার (১৬ জুন) তাদের প্রতিবেদেন এ তথ্য প্রকাশ করেছে।

তাইওয়ান জানিয়েছে, আকাশসীমায় প্রবেশ করা বিমানগুলোর মধ্যে পরমাণু বোমা বহনে সক্ষম বিমানও ছিলো। একে বিগত কয়েক বছরের মধ্যে সবচেয়ে বড় অনুপ্রবেশ বলছে তাইপে।

সোমবার (১৪ জুন) ব্রাসেলসে প্রথমবারের মতো ন্যাটো জোটের মূল এজেন্ডা হিসেবে উঠে চীন। অনুষ্ঠিত এক দিনের সম্মেলনে ন্যাটো নেতারা চীনের ‘কাঠামোগত চ্যালেঞ্জ’ এর বিষয়ে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন। পারমাণবিক অস্ত্র সম্প্রসারণসহ চীনা কর্মকাণ্ডে ‘আইন নির্ভর আন্তর্জাতিক শৃঙ্খলা’কে হুমকির মুখে ফেলেছে অভিযোগ তুলে ন্যাটো। তবে ন্যাটোর এমন অভিযোগ ভিত্তিহীন বলে উড়িয়ে দিয়েছে চীন।

চীনের বিরুদ্ধে সামরিক কর্মকাণ্ডে ন্যাটো জোটের এমন অভিযোগর একদিনের মাথায় তাইওয়ানের নিজেদের জঙ্গিবিমান উড়িয়েছে। তাইয়েপের তথ্যমতে, অনুপ্রবেশকারী বিমানগুলোর মধ্যে ১৪টি জে-১৬, ছয়টি জে-১১ ফাইটার বিমান এবং পরমাণু বোমা বহনযোগ্য এইচ-৬ বোমারু বিমান ছিলো। এর আগে গত ২৪ জানুয়ারি ১৫টি বিমান তাইওয়ানের আকাশসীমায় অনুপ্রবেশ করে। যুদ্ধবিমানগুলো পারমাণবিক অস্ত্র, সাবমেরিনবিধ্বংসী ও ইলেকট্রনিক অস্ত্র বহন করতেও সক্ষম।

চীন তাইওয়ানকে নিজেদের ভূখণ্ড বলে দাবি করে আসছে। তাই এর নিয়ন্ত্রণে জোর চেষ্টা চালাচ্ছে চীন। কিন্তু তাইওয়ান নিজেদের স্বাধীন সার্বভৌম রাষ্ট্র হিসেবেই দাবি করে আসছে।

Share the post
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply