পাওয়ার আলী‘র ভাই অঘোষিত ওসি কারাগারে – CBL24

কক্স৭১:

ইফতার পর্যন্ত প্রাণে না মারার আকুতি জানিয়েও দিনদুপরে প্রকাশ্যে নির্মভাবে খুনের শিকার কক্সবাজার সদরের পিএমখালীতে আলোচিত মোর্শেদ আলী হত্যা মামলার অন্যতম আসামি বহু অপকর্মের হোতা মাহমুদুল করিম ওরফে ওসি মাহমুদুল করিম অবশেষে কারাগারে।মঙ্গলবার (৩১ মে) দুপুর দেড়টায় কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ আদালতে জামিন আবেদন করলে বিচারক মোহাম্মদ ইসমাইল তা নামঞ্জুর করে তাকে জেল হাজতে প্রেরণ করে।
স্থানীয়রা জানান, মাহমুদুল করিম পিএমখালী ঘোলার পাড়া ৬নং ওয়ার্ড মৃত মোহাম্মদ ইলিয়াস প্রকাশ কালুর পুত্র। তার ভাই আলীর প্রভাব খাটিয়ে থানা থেকে শুরু করে সর্বত্র দালালি, চাঁদাবাজি, জমি দখল, সালিশ বাণিজ্যসহ নানা অপকর্ম করেছে। বর্তমানে সে অঢেল সম্পদের মালিক। তার কালো টাকার কাছে সকলেই জিম্মি ছিলো।
পিএমখালীতে তার অত্যাচারে অতিষ্ট হয়ে উঠেছিল সাধারণ মানুষ। চলতি বছরের ৭ এপ্রিল পবিত্র রমজান মাসে বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে জমির পানি সেচ প্রকল্পের বিরোধকে কেন্দ্র করে মোর্শেদ আলীকে পরিকল্পিতভাবে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়। এই হত্যাকাণ্ডে মাহমুদুল করিম ওতপ্রোতভাবে জড়িত ছিল। অবশেষে সে আইনের আওতায় আসায় স্বস্তি প্রকাশ করেছেন পিএমখালীর সাধারণ মানুষ।এলাকাবাসীর সূত্রে জানা যায়, পিএমখালীতে সন্ত্রাসীর সক্রিয় অংশগ্রহণে ধর্ষণ ও নারী নির্যাতন, লুটপাট, চাঁদাবাজি, ছিনতাই ও রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষসহ নানা অপকর্ম যেন একরকম স্থায়ী সংস্কৃতিতে পরিণত হয়েছে। এসব অপরাধ নিয়ন্ত্রণ করেন পিএমখালীর বাসিন্দা মাহামুদুল করিম। মাহামুদুল করিম পিএমখালী ইউনিয়নের অঘোষিত ওসি হিসেবে বেশ পরিচিত। ওই ইউনিয়নের ৯০ ভাগ বিচার-সমাধান তার হাত ধরেই হয়। থানায় কেউ অভিযোগ বা মামলা করলে সেটারও সমাধান দেন তিনি। তার কথার বাইরে কেউ অভিযোগও করতে পারে না। সদর থানার সাথে তার যোগাযোগ বহু বছর আগে থেকে। যার কারণে পিএমখালীর ওসি হিসেবে তার বেশ খ্যাতি রয়েছে এলাকায়। সেই অঘোষিত ওসি এখন কারাগারে। মোরশেদ বলী হত্যাকাণ্ডের অন্যতম আসামি মাহামুদুল করিম। পিএমখালী গোলারপাড়া গ্রামের দরিদ্র নৌকার মাঝি ইলিয়াস প্রকাশ ওরফে কালু মাঝির ছেলে করিম।

Leave a Reply