‘ফাস্ট-ট্রাক’ মর্যাদা পেল করোনার দুই টিকা

মহামারি করোনাভাইরাসের টিকা আবিস্কারের লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ। বিভিন্ন দেশের ১০০টি টিকার ট্রায়াল চলছে বিশ্বব্যাপী। তার মধ্যে দুটি টিকাকে ‘ফাস্ট-ট্রাক’ মর্যাদা দিয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের খাদ্য ও ওষুধ প্রশাসন (এফডিএ)। খবর আল জাজিরার।

টিকা দুটির একটি জার্মানির ‘বায়োএনটেক’ এর ও অন্যটি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ‘পিফিজার’ এর তৈরি। এফডিএ বায়োএনটেকের তৈরি টিকার সাংকেতিক নাম রেখেছে BNT162b1। আর পিফিজারের টিকার সাংকেতিক নাম রেখেছে BNT162b2। বিশ্বের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের তৈরি শ’খানের টিকার মধ্যে এই দুটি এগিয়ে রয়েছে। এই দুটি টিকার ইতিমধ্যে ট্রায়াল ১ সম্পন্ন হয়েছে এবং ট্রায়াল ২ চলমান রয়েছে।

চলতি মাসের শুরুতে প্রতিষ্ঠান দুটি জানিয়েছে তাদের প্রাথমিক ট্রায়ালে করোনার বিরুদ্ধে আশাব্যাঞ্জক ফল পেয়েছে তারা। বিস্তারিত তথ্য চলতি মাসের শেষের দিকে প্রকাশ করবে। অনুমোদন পেলে চলতি মাসের শেষের দিকে তারা বড় আকারে ট্রায়াল শুরু করবে। যেখানে ৩০ হাজার স্বেচ্ছাসেবকদের শরীরে দেওয়া হবে এই টিকা।

বায়োএনটেক ও পিফিজারের টিকা দুটির ট্রায়াল ১ ও ২ এর কার্যকারিতা ও অন্যান্য বিষয়ের ডাটা বিশ্লেষণ করেই এফডিএ ‘ফাস্ট-ট্রাকের’ স্বীকৃতি দিয়েছে। ধারনা করা হচ্ছে এই স্বীকৃতি প্রতিষ্ঠান দুটিকে করোনার কার্যকরী টিকা আবিস্কারের ক্ষেত্রে আরো দায়িত্বশীল ও যত্নবান করে তুলবে।

শেষ পর্যন্ত এই দুটি টিকা যদি সফলভাবে তাদের ট্রায়াল শেষ করতে পারে তাহলে চলতি বছরের শেষ নাগাদ ১ কোটি ডোজ ও ২০২১ সালের শেষ পর্যন্ত ১২০ কোটি ডোজ টিকা তৈরি করতে পারবে।

মহামারি করোনাভাইরাসে বিশ্বব্যাপী এ পর্যন্ত ১ কোটি ৩১ লাখ ৫৮ হাজার ৫৭৮ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। মারা গেছে ৫ লাখ ৭৩ হাজার ৪৫২ জন।

Share the post
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply