বরিশালের বানারীপাড়ায় ৩ জন খুন: কিছুই টের পাননি পরিবারের বেঁচে যাওয়া সদস্যরা

বানারীপাড়া, বরিশাল :

বরিশালের বানারীপাড়া উপজেলার সলিয়াবাকপুরের কুয়েত প্রবাসী মসজিদের ইমাম হাফেজ আব্দুর রবের বাড়ি থেকে আজ শনিবার সকালে একই পরিবারের তিনজনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। তাঁরা হলেন আব্দুর রবের মা মারিয়াম বেগম (৭৫), ভগ্নিপতি মো: শফিকুল আলম (৬৫) ও খালাতো ভাই মো. ইউসুফ (১৮)।

পুলিশের ভাষ্যমতে, তাঁদের খুন করা হয়েছে। প্রাথমিকভাবে বিষয়টি পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড বলে ধারণা পুলিশের।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, বরিশালের বানারীপাড়া উপজেলার সলিয়াবাকপুর এলাকার কুয়েত প্রবাসী আব্দুর রব হাওলাদারের বাড়িতে শনিবার (৭ ডিসেম্বর) সকালে ৩টি মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। শুক্রবার মধ্যরাতের পর যেকোনো সময় তাদের হত্যা করা হয়েছে বলে ধারণা করছে পুলিশ। ঘরের ভেতর থেকে দুজনের ও বাড়ির পুকুর থেকে হাত-পা বাঁধা অবস্থায় একজনের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। শুক্রবার মধ্যরাতের পর যেকোনো সময় তাদের হত্যা করা হয়েছে বলে ধারণা করছে পুলিশ।

ওই পরিবারের স্বজন আছিয়া আকতার ও তার চাচি মিসকাত মিডিয়াকে জানান, ফজরের আযান দিলে নামাজের জন্য ওঠেন আছিয়া। তিনি বেলকনিতে গেলে তার দাদি মরিয়ম বেগমের মরদেহ দেখতে পান প্রথমে। তার চিৎকারে প্রবাসীর স্ত্রী মিসকাত ওঠেন। তারা একে একে মরিয়ম বেগমের বোনের ছেলে মো. ইউসুফ এবং মেয়ে জামাই শফিকুল আলমের মরদেহ ঘরের মধ্যে এবং পার্শ্ববর্তী পুকুরে দেখতে পান। তাদের চিৎকারে স্থানীয়রা জড়ো হয়ে পুলিশে খবর দেয়। পুলিশ এসে মরদেহ উদ্ধার করে।

তারা আরও জানান, আব্দুর রব ১১ বছর ধরে কুয়েতে একটি মসজিদে ইমামতি করেন। তার স্ত্রী ও সন্তান বাড়িতে থাকেন। নিহত তিনজনের মধ্যে ইউসুফ এবং শফিকুল আলম দুই দিন আগে বেড়াতে এসেছিলেন।

বরিশালের পুলিশ সুপার (এসপি) সাইফুল ইসলাম জানান, প্রত্যেকটি মরদেহের নাক দিয়ে রক্ত বের হচ্ছিল। এ কারণে বিষয়টিকে তারা অস্বাভাবিক এবং পরিকল্পিত হত্যা বলে প্রাথমিক ভাবে মনে করছেন।

এ ঘটনায় জড়িতদের খুঁজে বের করে বিচারের দাবি জানিয়েছে স্বজন ও এলাকাবাসী। এদিকে ঘটনার তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানিয়েছেন পুলিশ সুপার।

Share the post
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply