ভারমুক্তই হচ্ছেনা মহেশখালী উপজেলা প্রশাসনের প্রধান প্রধান দপ্তরের পদ সমূহ!

মোঃ আকিব বিন জাকেরঃ

বাংলাদেশ সরকারের সবচেয়ে বেশি অর্থনৈতিক সম্ভাবনাময়ী উপজেলা কক্সবাজারের মহেশখালী। কেননা মহেশখালীতেই হচ্ছে বাংলাদেশের সবচেয়ে গভীর সমুদ্রবন্দর, আল্ট্রা সুপার ক্রিটিক্যাল প্রযুক্তি সম্পন্ন কয়লা বিদ্যুৎ প্রকল্প, এলএনজি টার্মিনাল, ইকোট্যুরিজম পার্ক সহ অসংখ্য উন্নয়ন প্রকল্প। অথচ বাংলাদেশ সরকারের এই জনগুরুত্বপূর্ণ উপজেলায় প্রশাসনের প্রধান দপ্তর ইউএনও থেকে শুরু করে বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান প্রধানের পদ সমূহ রয়েছে ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের দিয়ে পরিপূর্ণ ! পদবী সমূহ দীর্ঘদিনেও পাচ্ছেনা পরিপূর্ণতা। যার কারণে জনসেবাও থেকে যাচ্ছে অপরিপূর্ণ। সরকারি-বেসরকারি দাপ্তরিক কাজে নানান জটিলতা ও হয়রানির শিকার হচ্ছে সাধারণ মানুষ। একিই সাথে বাংলাদেশ সরকারের বাস্তবায়নাধীন উন্নয়ন প্রকল্পেও সৃষ্টি হচ্ছে চরম ব্যাঘাত। সুযোগ লুটছে বিভিন্ন দপ্তর ও প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। ফাঁকি দিচ্ছে অফিস। সুযোগ বুঝেই করছে দুর্নীতি। যেন জনদুর্ভোগ এবং দুর্নীতির আখড়া হিসেবে গড়ে তুলেছে পুরো উপজেলাকেই। ভারপ্রাপ্ত পদে রয়েছেন উপজেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার (ভূমি), বন বিভাগের উপজেলা রেঞ্জ (মহেশখালী) কর্মকর্তা, বঙ্গবন্ধু সরকারী মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা, উপজেলা কানুনগো, উপজেলা হাসপাতালের স্টোর কিপার এবং মহেশখালী আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সহ উপজেলার আরো বহু গুরুত্বপূর্ণ দপ্তর এবং প্রতিষ্ঠানের দায়িত্বশীল ব্যাক্তি। বিভিন্ন দপ্তরের সংশ্লিষ্টদের মতে- নানা অপকৌশল অবলম্বনের মাধ্যমে স্থানীয় ও প্রশাসনিক স্বার্থান্বেষী একটি দুর্নীতিবাজ সিন্ডিকেট উপজেলার গুরুত্বপূর্ণ পদ সমূহকে ভারপ্রাপ্ত করে রেখেছে। এ ব্যাপারে স্থানীয় রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ এবং প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের ভূমিকা নিয়ে হতাশ উপজেলাবাসী। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে এনিয়ে অনেকে প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করতেও দেখা গেছে। জনসেবা এবং নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণে অতি দ্রুত পদ সমূহে কর্মকর্তা নিয়োগের দাবি জানান তারা।

Share the post
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply