ভোলায় পুলিশী হত্যাকান্ডের প্রতিবাদে হাটহাজারীতে হেফাজতের বিক্ষোভ

মো: আলাউদ্দীন, হাটহাজারি প্রতিনিধি:

ভোলা জেলার বোরহানউদ্দীনে আজ সকালে ছাত্র-জনতার শান্তিপূর্ণ মিছিলে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর বর্বরোচিত হামলায় আহত ও নিহত হওয়ার ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ এর আমীর, দারুল উলূম হাটহাজারী’র মহাপরিচালক আল্লামা শাহ আহমদ শফী ও হেফাজত মহাসচিব আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী। রবিবার (২০ অক্টোবর) সন্ধ্যা ৭টার দিকে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে হেফাজত নেতৃবৃন্দ এ প্রতিবাদ জানান।
বিবৃতিতে হেফাজত নেতৃদ্বয় বলেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের ম্যাসেঞ্জারে মহানবী হযরত মুহাম্মদ সা. ও তার পরিবারবর্গ নিয়ে কটূক্তি ও অবমাননাকারী হিন্দু যুবক বিপ্লব চন্দ্র শুভকে আইনের আওতায় না এনে উল্টো ছাত্র জনতার শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভ মিছিলে পুলিশ কর্তৃক হামলা করে চরম ধৃষ্টতার পরিচয় দিয়েছে। অবিলম্বে রাসূল সা. এর কটূক্তিকারী হিন্দু যুবক এবং হামলাকারী পুলিশ সদস্যদের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করুন। অন্যথায় নবীপ্রেমিক জনতা অসহযোগ আন্দোলন গড়ে তুলবে। হেফাজত নেতৃদ্বয় আরো বলেন, মহানবী হযরত মুহাম্মদ সা বিশ্ব মুসলমানদের হৃদয়ের স্পন্দন। মহান আল্লাহর তাআলার পরই রাসূল সা. এর স্থান। তিনি আমাদের আদর্শ মহাপুরুষ। তাঁর পবিত্র জীবন নিয়ে, তাঁর পরিবারবর্গ নিয়ে কেউ কটূক্তি করলে তা কোন মুসলমান সহ্য করতে পারে না। বাংলাদেশে কিছুদিন পরপর এমন ঘটনা ঘটছে। নবী অবমাননা যেন আর না হয় আমি সরকারের কাছে নবী অবমাননার সর্বোচ্চ মৃত্যুদ- করে আইন পাশ করার জোর দাবী জানাচ্ছি। হেফাজত নেতৃদ্বয় আরো বলেন, বোরহান উদ্দীনে আজকের শান্তিপূর্ণ মিছিলে পুলিশ কর্তৃক বর্বরোচিত ঘটনায় যারা প্রাণ হারিয়েছে তাঁরা নিঃসন্দেেহ শহীদ। উক্ত শহীদদের শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানাচ্ছি এবং আহত তাওহীদি জনতার আশু সুস্থতা কামনা করছি।
এদিকে একইদিন বিকাল ৫টার দিকে তৌহিদী জনতা ও হাটহাজারী বড় মাদ্রাসা শিক্ষার্থীরা তাৎক্ষনিক এক প্রতিবাদ বিক্ষোভ মিছিল বের করে, উত্তেজিত মিছিলকারীদের দেখে দ্রুত স্থানীয় দোকান মালিকরা দোকানপাট বন্ধ করে দেয় এসময় লোকজন আতংকিত হয়ে দিকবেদিক ছোটাছুটি করতে দেখা গেছে। মিছিল চলাকালে চট্টগাম-হাটহাজারী-চট­্টগাম খাগড়াছড়ি ও চট্টগাম রাঙ্গামাটি আঞ্চলিক মহাসড়কে তীব্র যানজটের সৃস্টি হয়। যানচলাচল বন্ধ হয়ে যাওয়ায় এ সময় যাত্রী সাধারন চরম দূর্ভোগে সম্মুখীন হয়। হাটহাজারী বড় মাদ্রাসা থেকে একটি বিশাল বিক্ষোভ মিছিল বের হলে উত্তেজিত মিছিলকারীরা দোকানদারদের দোকান বন্ধ করে দিতে বলেন এবং বাজার,বাসস্ট্যন্ডে বেশ কয়েকটি যানবাহন ভাঙচুর করে। এদিকে মিছিলকারীরা হাটহাজারীর বিভিন্ন স্থানে রাস্তায় টায়ার জ্বালিয়ে যানচলাচলে প্রতিবন্ধকতা সৃস্টি করে বলে জানা যায়। হাটহাজারী মাদ্রাসা সংলগ্ন সীতাকালি মন্দিরে হামলার আশংকায় মাদ্রাসা ছাত্ররা মন্দিরের গেইটে পাহারা দিতেও দেখা যায়। তবে উত্তেজিত ছাত্ররা হাটহাজারী মডেল থানায় ইট-পাথর নিক্ষেপ করে দরজা জানালার কাঁচ ভেঙ্গে ফেলেছে বলে সূত্রে জানা গেলেও বিক্ষোভরতদের একটি সূত্র জানিয়েছে তাদের পক্ষ থেকে থানা লক্ষ্য করে কোন ইটপাটকেল নিক্ষেপ করা হয়নি। বরং তাদেরকে ধাওয়া করতে কে বা কারা ইটপাটকেল নিক্ষেপ করলে থানার দরজা জানালার গ্লাস ভাঙ্গে। এক পর্যায়ে মাদ্রসা শিক্ষকরা ছাত্রদের মাদ্রাসায় ফিরে যাওয়ার নির্দেশ দিলে তারা রাস্তা ছেড়ে সন্ধ্যার দিকে মাদ্রাসায় ফিরে গেলে রাস্তায় যানচলাচল স্বাভাবিক হয়ে আসে।
অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হাটহাজারী সার্কেল আবদুল্লাহ আলম মাসুম ও থানার ওসি বেলাল উদ্দিন জাহাঙ্গীরের কাছে থানার দরজা জানালার গ্লাস ভাংচুর ও ঘটনার বিষয়ে জানার জন্য বার বার ফোন করা হলেও ফোন রিসিভ করেননি।

Share the post
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply