মরা মহিষের মাংস বিক্রিকালে আটক পিতা-পুত্র।

শহীদ আফ্রিদি, উপকূলীয় প্রতিনিধি

মহেশখালী উপজেলার বড় মহেশখালী ইউনিয়নের নতুন বাজারে কুতুবজুম ইউনিয়নের তাজিয়াকাটার বাসীন্দা কসাই মঞ্জুর প্রকাশ ডহর মনু, পিতা নুরুল ইসলাম (বাবা ছেলে) দুইজনে আজ মঙ্গলবার বিকেল ২ টায় মরা মহিষের মাংস বিক্রয়কালে থানা পুলিশের নিকট ধৃত হয়। মহেশখালী উপজেলার বড় মহেশখালী নতুন বাজারে কুতুবজোম তাজিয়া কাটা থেকে মৃত মহিষ এনে জবাই করে মাংস বিক্রি করে বাবা ছেলে। আলী আকবরের মৃত মহিষটি মেয়ের জামাই আব্দুল গফুরকে পুঁতে ফেলার দায়িত্ব দিলে গফুর টাকার লোভে ২০ হাজার টাকা দিয়ে মহিষটি বিক্রি করে দেয় কসাই নুর হোসেন ও তার পুত্র মঞ্জুরের কাছে। খবরটি জনতার মাঝে ছড়িয়ে পড়লে তৎক্ষনাৎ বড় মহেশখালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব এনায়েত উল্লাহ বাবুল ইউনিয়ন পরিষদের গ্রাম পুলিশ সাথে নিয়ে মাংস সহ দু’জন বিক্রেতাকে আটক করে। মহেশখালী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ আব্দুল হাইকে অবগত করলে- তিনি ডিউটি অফিসার এসআই মনিষ সরকারকে ঘটনাস্থলে পাঠিয়ে প্রতারকদের গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে আসেন। তবে গ্রেফতার হয়নি কসাইরা।
ঘটনার পর মহেশখালী উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) সাইফুল ইসলামের নেতৃত্বে বিভিন্ন দোকানে অভিযান শুরু হয় বলে জানা যায়। এই বিষয়ে এরফান হেসাইন বলেন, কসাইদের গ্রেফতার করতে পারলে আরও তথ্য বেরিয়ে আসবে। কোন কোন হোটেলে রান্না হয় মরা পশুর মাংস বা কোন কোন ব্যবসায়ী মৃত গরু,মহিষের মাংস ব্যবসা করে আসছে দীর্ঘদিন ধরে।

থানা সূত্রে জানা যায়, উদ্ধারকৃত মৃত মহিষের মাংস মাঠিতে পুঁতে ফেলা হয়েছে ও প্রতারকদের ১ মাসের কারাদণ্ডে দণ্ডিত করে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

Share the post
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply