মহেশখালীতে পরকিয়ার টানে প্রেমিকের হাতধরে নববধু উধাও; নগদ টাকা ও স্বর্ণালংকার লুট।

এ.কে.রিফাত
মহেশখালী::

দ্বীপ উপজেলা মহেশখালী পৌরসভার ০৫ নং ওয়ার্ড ঘোনা পাড়ায় পরকীয়া প্রেমের টানে সদ্য বিবাহীত স্ত্রী স্বামীর টাকা ও স্বর্ণালংকার নিয়ে সাবেক প্রেমিকের হাত ধরে পালানোর অভিযোগ পাওয়া গেছে ।
সদ্য বিবাহিত স্ত্রীকে ফিরিয়ে পেতে স্বামী বিভিন্ন এলাকায় ও প্রশাসনের দ্বারস্ত হচ্ছেন বলে জানা যায়।

এ ঘটনায় কথিত প্রেমিকের নামে মহেশখালী থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

মহেশখালী থানায় দায়ের করা অভিযোগে ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়- মহেশখালী পৌরসভার ৫ নং ওয়ার্ডের ঘোনা পাড়া গ্রামের আবদু শুক্কুর মাঝির মেয়ে কুলসুমা আক্তারের সাথে পৌরসভার ০৮ নং ওয়ার্ডের নাজমুল হকের পুত্র মোঃ ইকবালের সাথে গত ৫ ফেব্রুয়ারি ইসলামী শরিয়ত মোতাবেক বিবাহ হয়। বিয়ের পর স্ত্রী কুলসুমা তার পিতার বাড়িতে বসবাস করত, কিছু দিনের মধ্যে বিবাহের অনুষ্ঠানের মাধ্যমে স্ত্রী কুলসুমাকে স্বামীর বাড়িতে নিয়ে আসার কথা ছিল।

অপরদিকে কুতুবজোম ইউনিয়নের ০৯ নং ওয়ার্ড খোন্দকার পাড়ার মৌলভী নুরুচ্ছফার পুত্র আরিফ উল্লাহর সাথে পূর্ব থেকে প্রেমের সম্পর্ক ছিল কুলসুমার। বিয়ের পরেও প্রেমিককে ভুলতে না পেরে তাদের সম্পর্কটি ধীরে ধীরে পরকিয়া প্রেমের সম্পর্কে গভীর আকার ধারণ করে।

এইদিকে স্বামী তার নববধূকে বরণ করতে বাড়িতে বিবাহের অনুষ্ঠানের দিন তারিখ ঠিক করে রেখেছিলেন।
বিবাহ অনুষ্ঠানের একদিন আগে গত ০৮ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যায় মোটা অংকের নগদ টাকা ও স্বর্ণালংকার নিয়ে কুতুবজোম খোন্দকার পাড়ার মৌলভী নুরুচ্ছফার পুত্র আরিফ উল্লাহর হাত ধরে নববধু কুলসুমা পালিয়ে যায়।

আরিফ উল্লাহ ইতিপূর্বে একধিক বিবাহ করেছে বলে বলে স্থানীয় একাধিক সূত্রে জানা যায় ৷

উক্ত ঘটনায় কুলসুমার মা বাদী হয়ে গত ৯ ফেব্রুয়ারী ৩ জনকে আসামী করে মহেশখালী থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

স্বামী ইকবাল জানান,আমার বউ কুলসুমা আমার দেওয়া স্বর্ণালংকার,কাপড় ও টাকা নিয়ে পালিয়ে গেছে। আমি এখন দিশেহারা হয়ে পড়েছি।

আমার স্ত্রী ফেরত আসলে এখনও আমি তাকে গ্রহণ করবার জন্য প্রস্তুত।
কেউ যদি আমার স্ত্রীকে আমার কাছে ফিরিয়ে দিতে পারেন তাহলে তাকে পুরস্কৃত করা করব।

মহেশখালী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ আব্দুল হাইয়ের কাছ থেকে উক্ত বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন;
ইকবাল নামের একটা ছেলের নববধু পরিকিয়ায় লিপ্ত হয়ে প্রেমিকের সাথে পালিয়ে যাওয়ার বিষয়ে একটি অভিযোগ হাতে পেয়েছি।
ইকবালের স্ত্রীকে উদ্ধার ও অভিযুক্ত আরিফ উল্লাহকে থানায় হাজির করার চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

Share the post
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply