মহেশখালীতে র্যাবের অভিযানে অস্ত্র উদ্ধার; আটক ৩।


ুউপকূলীয় প্রতিনিধি

মাস না পেরুতেই আলাউদ্দিন হত্যা মামলার ৬ আসামী গ্রেফতার। গত ৫ই নভেম্বর নৃশংসভাবে খুন হওয়া আলাউদ্দিনের আসামীদের গ্রেফতারে তৎপর প্রশাসন। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর হাতে আত্মসমর্পণকৃত আলাউদ্দিন হত্যা মামলার আসামীদের মধ্যে থেকে ১৫- দিনের মধ্যেই গ্রেফতার হলেন চারজন এজাহারনামীয় আসামী। এর মধ্যে ১০ ই নভেম্বর আলাউদ্দিন হত্যা মামলার এজাহারনামীয় তিনজন আসামীকে চট্টগ্রাম থেকে আটক করেছে পুলিশ। তাদের মধ্যে থেকে, নজির আহমদ (৩০), মোঃ খোকন (২৫), উভয় পিতা-মৃত মনসুর আলম প্রকাশ রসু, ৩। শহিদুল্লাহ প্রকাশ ছাদু আলী (৪০), পিতা-মৃত ফজল আহমদ।

এরপর ১৬ তারিখ রাতেই শহীদুল্লাহ( ৪২) নামক আরও একজন এজাহারভুক্ত আসামী গ্রেফতার হয় র্যাব-১৫ এর হাতে। গত এক সপ্তাহ ধরে নিখোঁজ হওয়া আইয়ুব আলী (৪০) এবং এবং বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশ হওয়া মৃত রশোর পুত্র মামুন(২৮) ও মামুনের সহযোগী রিফাতকে(২৩) কে আজ মঙ্গলবার গ্রেফতার দেখায় র্যাব -১৫। তবে রিফাত আলাউদ্দিন হত্যা মামলার এজাহারভুক্ত আসামী নয়। তাদের আস্তানা থেকে বিপুল পরিমাণ অস্ত্রও উদ্ধার করা হয় বলে জানা গেছে। অপরাধ দমনে ছায়াতদন্তে গিয়ে ২২ নভেম্বর বান্দরবানের লামার ফাইতং থেকে হত্যাকাণ্ডের প্রধান আসামী মামুন এবং তার সহযোগী রিফাতকে আটক করা হয়। তাদের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে ১২ নম্বর আসামি আয়ুব আলীকে কক্সবাজার শহরের পাহাড়তলী এলাকা থেকে আটক করা হয়।

কক্সবাজার র‌্যাব-১৫ এর সিপিসি কমান্ডার মেজর শেখ ইউসূফ আহমেদ জানান, একটি হত্যা মামলার রহস্য উম্মোচিত হওয়ার পাশাপাশি অস্ত্রও উদ্ধার করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে পরবর্তী আইনি ব্যবস্থা শেষে মহেশখালী থানায় হস্তান্তর করা হবে।

র‌্যাব-১৫ এর অধিনায়ক লে. কর্নেল খায়রুল ইসলাম সরকার বলেন, কক্সবাজারে জেলায় মাদক ও সন্ত্রাসবাদ দমনে র‌্যাব-১৫ কাজ করে যাচ্ছে।

Share the post
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply