মহেশখালীতে সম্পত্তির লোভে বড় ভাইয়ের হাতে ছোট ভাইয়ের চোখ উপড়ে ফেলার অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

আপন ভাইদের মারধরের শিকার হয়ে দৌঁড়ে বাড়িতে প্রবেশ করেও রক্ষা পায়নি মামুন নামের এক যুবক। সম্পত্তির লোভে তার ভাইয়েরা হাতুড়ি ও লোহার রড দিয়ে এলোপাতাড়ি পিটিয়ে দুই চোখ উপড়ে ফেলে তার। গুরুত্বর আহত অবস্থায় ওই যুবককে উদ্ধার করে প্রথমে কক্সবাজার, সেখান থেকে চট্টগ্রাম চক্ষু হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

মঙ্গলবার (৪ অক্টোবর) সকাল ১১ টায় মহেশখালী উপজেলার কালারমারছড়া ইউনিয়নের অফিস পাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

আহত যুবকের নাম মুবিনুল হক মামুন। সে ওই গ্রামের মৃত আবদুল হকের পুত্র।

আহতের স্ত্রী ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান- সম্পত্তি আত্মসাৎ করার লক্ষ্যে তার ভাসুর এনামুল হক বাদশা ও রিদোয়ানুল হকের নেতৃত্বে একদল অস্ত্রধারী তার স্বামীকে হত্যা করার জন্য হামলা করে এলোপাতাড়ি মারধর করে। তখন তার স্বামী বাঁচার জন্য বাড়িতে ডুকে ভিতর থেকে দরজা বন্ধ করে দেন। তারপরেও রক্ষা হয়নি তার। তার ভাইয়েরা তার স্বামী মামুনের দুই চোখ উপড়ে ফেলে। পরে তাকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে নেয়া হয়।

তিনি আরো জানান- রাতেই চট্টগ্রাম চক্ষু হাসপাতালে তার স্বামীর চোখের অপারেশন করা হবে। তিনি এখন মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে। চোখে আদৌ দেখতে পাবেন কিনা সন্দিহান বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

এদিকে স্বামীকে হাসপাতালে রেখে চিকিৎসা খরচের জন্য বুধবার (৫অক্টোবর) সকালে বাড়িতে এলে এনামুল হক বাদশা তাকেও মারধর করে আহত করে বলেও জানান তিনি।

এই বিষয়ে আহতের স্ত্রী থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে জানা গেছে।

অপরদিকে অভিযুক্ত এনামুল হক বাদশা ও রিদোয়ানুল হক তাদের ছোট ভাই মামুন ও তার স্ত্রীকে মারধরের কথা স্বীকার করে জানান- ভিটিজমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে কথা-কাটাকাটির এক পর্যায়ে মামুনকে থামানোর চেষ্টা করে এবং সেখানে সে দুই চোখে আঘাত পান।

Leave a Reply