মহেশখালীর সিপাহীর পাড়ায় বসত ভিটার জের ধরে প্রতিপক্ষের উপর হামলা।

আমিনুল হক – মহেশখালী প্রতিনিধি

মহেশখালীর সিপাহীর পাড়ায় বসত ভিটার জের ধরে প্রতিপক্ষের উপর হামলা চালিয়ে বাড়ী ঘর ভাংচুর, গাছ কর্তন ও লোকজন আহত করার অভিযোগ। বার্তা পরিবেশক: ২১ সেপ্টেম্বর- ১৯ইং। মহেশখালী উপজেলার ছোট মহেশখালী ইউনিয়নের সিপাহীর পাড়াস্থ এলাকায় বসত ভিটার জের ধরে প্রতিপক্ষের উপর হামলা চালিয়ে বাড়ী-ঘর ভাংচুর, গাছ কর্তন ও দুই জন ব্যক্তিকে আহত করার খবর পাওয়া গেছে।

সূত্রে জানা যায়, সিপাহীর পাড়া এলাকার মাওলানা ইউনুছের ছেলে মাহাবুব আলম গংদের স্বত্বদখীয় বসত ভিটার জমি জোর পূর্বক জবর দখল করার জন্য দীর্ঘদিন ধরে অপচেষ্টা চালিয়ে আসছে একই এলাকার মৃত হাজ্বী উলা মিয়ার পুত্র মোঃ ছিদ্দিক গং। ইতিপূর্বে উক্ত জায়গা নিয়ে বিরোধ দেখা দিলে মাহাবুব আলম গং এর পক্ষে মৃত গোলাম কুদ্দুছের পুত্র সিরাজ কামাল কক্সবাজার অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে অপর মামলা নং- ৯৪৬/২০১৯ ফৌঃ কাঃ বিঃ-১৪৪ ধারার আবেদন করেন। অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট তার আবেদন আমলে নিয়ে বিষয়টি সরজমিন তদন্ত পূর্বক প্রতিবেদন দাখিল করার জন্য মহেশখালী উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি)কে নির্দেশ দেন এবং মহেশখালী থানাকে আইনশৃংখলা রক্ষার জন্য অবহিত করেন। মোঃ ছিদ্দিকগং তা জানতে পেরে প্রতিশোধ পরায়ন ও ক্ষিপ্ত হয়ে গত ২১ সেপ্টেম্বর দিবাগত রাতে মাহাবুব আলম গংদের পুরাতন বসত ভিটায় গিয়ে জোর পূর্বক হামলা চালিয়ে বাড়ী ঘর ভাংচুর, ঘেরা বেড়া লুটপাঠ ও বাড়ীর উঠানে থাকা বিভিন্ন ধরনের গাছ-পালা কেটে ফেলেছে বলে অভিযাগ পাওয়া গেছে। এছাড়াও মাহাবুব আলম গংদের সিরাজ কামাল জানান ঘটনার দিন তাদের বাড়ীর উঠানে থাকা পানের বরজের জন্য সংরক্ষিত বাশ, গাছ ও সলা লুট করে নিয়ে যায়।

মোঃ ছিদ্দিক গংদের হামলায় মাহাবুল আলম গং বাধা প্রদান করতে চাইলে মোঃ ছিদ্দিক গংদের হাতে গুরুতর আহত হয় মোজাম্মেল হক (২৫) ও মাহাবুব আলম (২৯)। মোজাম্মেলের অবস্থা আসংখ্যা জনক হওয়ায় তাকে কক্সবাজার মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে বলে জানা গেছে। উল্লেখ্য যে, মাহাবুব আলম গংদের দীর্ঘদিনের পৈত্রিক সম্পত্তির উপর লোলোপ দৃষ্টি পড়েছে মোঃ ছিদ্দিক গংদের। তারা বিভিন্ন কৌশলে উক্ত জায়গা ক্রয় করার জন্য মাধ্যমধরে প্রস্তাব দেন। জায়গা বিক্রির প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় মাহাবুব আলম গংদের কাছ থেকে উক্ত জায়গা জবর দখল করার জন্য মোঃ ছিদ্দিক গং হামলা চালায়। ২১ সেপ্টেম্বরের হামলা বিষয়ে মাহাবুব আলম গং মহেশখালী থানায় অবগত করেছেন বলে জানা গেছে।

এব্যাপারে যে কোন মুহুর্থে আরো বড় ধরনের রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আসংখ্যা দেখা দিচ্ছে। মাহাবুব আলম গং প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। ঘটনার বিষয়ে মোঃ ছিদ্দিক গং এর সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে, তাদের মোবাইলে সংযোগ না পাওয়ায় তাদের বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

Leave a Reply