মাতারবাড়ি কয়লা বিদ্যুৎ কেন্দ্র উন্নয়ন নাকি মরণব্যাধি !

আমি মহেশখালী ও কক্সবাজারবাসীর প্রতি চ্যালেঞ্জ করে বলছি,
মাতারবাড়ি কয়লা বিদ্যুৎ কেন্দ্র
বন্ধ করে দিতে সরকার নিজে বাধ্য হবে একদিন!!
হয়তো অধিগ্রহণের টাকায় কিছু মানুষ কোটিপতি হয়েছে,কিন্তু কর্মসংস্থান হারিয়েছে কয়েক লক্ষ লোক।
বিদ্যুৎ উৎপাদন শুরু হলে জেলাবাসী বুঝবে উক্ত বিদ্যুৎ কেন্দ্রের বাস্তবতা!
আমি কোন পরিবেশ বিশেষজ্ঞ নই,তবে অন্তত বুঝি উক্ত বিদ্যুৎ কেন্দ্রে উৎপাদন শুরু হলে আজকে যারা এসিকে বিলাসিতা মনে করছে তারাই একদিন এসি কক্সবাজারবাসীর জন্য প্রয়োজনীয়তা অনুভব করবে।
উক্ত চুল্লীর বিষাক্ত কালোধুলো গুলো হবে পর্যটন রাজধানীর জন্য অভিশাপ 😭😭
আমি শুধু বুঝি সামান্য ইটভাটায় যখন ইট পুড়ানো হয় তখন তার চারপাশে পাখিও উড়ে না,তাহলে তার চাইতে কয়েক হাজানগুন তাপ নিয়ে বিদ্যুৎ উৎপাদন শুরু হলে তার শত মাইল আশপাশেও মানুষের বসবাস থাকতে পারে কিনা তাও চিন্তার বিষয়।
কি করে প্রতিবেশ-পরিবেশ ঠিক থাকবে তা এখনই ভাবনার বিষয় হয়ে দাড়িয়েছে!😷😷
একদিকে রোহিঙ্গাদের কারনে প্রায় দশ হাজার একরের বেশি বনভূমি মরুভূমিতে পরিনত হয়েছে, বাসস্থান হারিয়ে বিলুপ্ত হয়েছে বিভিন্ন ধরণের কয়েক হাজার পশুপাখি
বিশ্বজুড়ে জলবায়ু পরিবর্তনের যে প্রভাব শুরু হয়েছে তার চরম মূল্য দিতে হবে কক্সবাজারবাসীকে।
আপাতত বেশি কিছু বলছি না বাস্তবতা উপলব্ধি করুক
জেলার সচেতন সকলে। মনে রাখবেন মানুষের জন্য রাজনীতি, রাজনীতির জন্য মানুষ নয়!
পরিশেষে বলব কেউ উন্নয়ন বিরোধী বলে তমকা লাগিয়ে দিতে পারেন আমার পিছনে,তবে মনে রাখবেন মানুষের জন্য উন্নয়ন, সেই মানুষকে বিলুপ্ত করে উন্নয়নের প্রয়োজন নেই🏃
#ভাঙনের মুখে দাঁড়িয়ে মানুষের কথা বলে
যাওয়ার নামেই রাজনীতি।

মাতারবাড়ি কয়লা বিদ্যুৎ

পাঁচতারার আপাত নিরাপদ আস্তানা তুচ্ছ।
এখনি সময় ঘুরে দাড়াবার….

লেখকঃ নজরুল ইসলাম

Share the post
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply