মানসিক চাপের জের! স্বেচ্ছামৃত্যুর আবেদন রাজীব গান্ধীর হত্যাকারী নলিনীর

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : অক্টোবরের শেষে মুক্তির দাবিতে অনশনে বসেছিল প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী রাজীব গান্ধী হত্যায় যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত নলিনী শ্রীহরণ। তামিলনাড়ুর ভেলোরে অবস্থিত মহিলা কারাগারে বন্দি থাকা নলিনীর দাবি ছিল, গত ২৮ বছর ধরে সে এবং তার স্বামী মুরুগান জেলে রয়েছে। তাই অবিলম্বে তাদের মুক্তি দিতে হবে। এই আবেদন করে জেল কর্তৃপক্ষকে একটি চিঠিও লিখেছিল। কিন্তু, তাতে কোনও কাজ হয়নি। ঠিক একমাস বাদে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও মাদ্রাজ হাই কোর্টের প্রধান বিচারপতি অমরেশ্বর প্রতাপ সাহির কাছে তার ও স্বামী মুরুগানের স্বেচ্ছামৃত্যুর আবেদন জানাল নলিনী। গত ২৭ নভেম্বর দুজনকেই এবিষয়ে চিঠি পাঠিয়েছে সে।

এপ্রসঙ্গে নলিনীর আইনজীবী জানান, গত ২৮ বছর ধরে মেয়ের কাছ থেকে দূরে রয়েছে নলিনী ও মুরুগান। বিষয়টি তাদের প্রচণ্ড মানসিক কষ্ট দিচ্ছে। তাই এর আগে বহুবার রাজ্য সরকারের কাছে নিজেদের মুক্তির আবেদন জানিয়েছে তারা। কিন্তু, তাতে কোনও কাজ হয়নি। বাধ্য হয়ে অক্টোবরের শেষে ভেলোরের মহিলা জেল কর্তৃপক্ষকে চিঠি লেখার পাশাপাশি অনশনেও বসেছিল নলিনী। তারপর বদল হয়নি অবস্থার। বাধ্য হয়ে অসহ্য মানসিক চাপ থেকে মুক্তি পেতে, জেল কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর অফিসে স্বেচ্ছামৃত্যুর আবেদন জানিয়েছে সে।

ওই আবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে, ২৬ বছর ধরে জেল থেকে মুক্তির পাওয়ার স্বপ্ন দেখত সে ও মুরুগান। কিন্তু, এখন সে স্বপ্ন ভেঙে গিয়েছে। এছাড়া মুরুগান যে জেলে বন্দি আছে সেখানকার কর্তৃপক্ষ তার সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করে। সে চাইলেও স্বামীর সঙ্গে দেখা করতে দেয় না। বাধ্য তামিলনাড়ু সরকারের কাছে স্বামীকে অন্য জেলে সরানোর আবেদনও করেছে। কিন্তু, কোনও সুরাহা হয়নি। বাধ্য হয়ে স্বেচ্ছামৃত্যুর আবেদন জানাচ্ছে তারা।

Share the post
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply