মালিতে ফ্রান্সের যৌথ সামরিক অভিযান স্থগিত

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

পশ্চিম আফ্রিকার দেশ মালিতে গত সপ্তাহে নয় মাসের মধ্যে দ্বিতীয় অভ্যুত্থানের পর মালিয়ান বাহিনীর সঙ্গে যৌথ সামরিক অভিযান স্থগিতের ঘোষণা দিয়েছে সাবেক উপনিবেশ স্থাপনকারী ফ্রান্স। দেশটি বলেছে, তারা মালির নাগরিকদের তাদের ক্ষমতা ফিরিয়ে দেওয়ার বিষয়ে সামরিক জান্তার ওপর আন্তর্জাতিক চাপ বাড়াবে। সংবাদমাধ্যম ভয়েস অব আমেরিকা এ খবর জানিয়েছে।

ফ্রান্স টোয়েন্টিফোর ডটকমের প্রতিবেদনে বলা হয়, বেসামরিক সরকারের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তরের নিশ্চয়তা না পেলে মালিতে সেনাবাহিনীর সঙ্গে কোনো সন্ত্রাসবিরোধী অভিযানে অংশ নেবে না দেশটিতে শান্তিরক্ষায় নিয়োজিত ফ্রান্সের সেনারা।

বিবৃতিতে ফ্রান্সের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, ‘সাময়িক নিষেধাজ্ঞার অংশ হিসেবে মালির সেনাবাহিনীর জন্য লাভজনক কোনো কার্যক্রমেই অংশ নেবে না ফরাসি সেনারা। মালির বর্তমান সেনা নিয়ন্ত্রিত শাসকগোষ্ঠী এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যাখ্যা দিলে কয়েকদিন পর এ সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনা করা হবে।’
আফ্রিকান ইউনিয়ন ও ইকোয়াসের গৃহীত ব্যবস্থার সঙ্গে সমন্বয় রেখে এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্যারিস।

এর আগে মালিতে জঙ্গিবাদের উত্থান দেখা দেয়ার আশঙ্কায় ফরাসি সেনাদের ফিরিয়ে নেয়ার হুমকি দিয়েছেন ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইম্যানুয়েল মাখোঁ।
আফ্রিকার সাহেল অঞ্চলের পাঁচ দেশ বুরকিনা ফাসো, শাদ, মালি, মৌরিতানিয়া ও নাইজারে ফ্রান্সের পাঁচ হাজার ১০০ সেনা মোতায়েন রয়েছে। শাদ থেকে পরিচালিত এ মিশন শুরু হয় ২০১৩ সালে মালি থেকে জঙ্গিদের উৎখাতের মধ্য দিয়ে।

উল্লেখ্য, গত ২৪ মে মালির অন্তর্বর্তী সরকারের প্রেসিডেন্ট বাহ দাও ও প্রধানমন্ত্রী মুকতার উয়ানেকে ক্ষমতাচ্যুত করে প্রেসিডেন্ট হন অভ্যুত্থানকারী সেনা কর্মকর্তা কর্নেল আসিমি গোইতা। আটকের তিন দিন পর দাও-উয়ানে শর্তসাপেক্ষে মুক্তি পেলেও তারা পদত্যাগ করেছেন বলে জানায় সেনাবাহিনী।
মালির অন্তবর্তী সরকারের প্রেসিডেন্ট হিসেবে আগামী সোমবার আনুষ্ঠানিক দায়িত্ব নেবেন গোইতা। সেদিন তার সঙ্গে শপথ নিতে পারেন দেশটির নতুন প্রধানমন্ত্রীও।
মালির সাম্প্রতিক অভ্যুত্থান কূটনৈতিক অঙ্গনে ঝড় তোলে, যার পরিপ্রেক্ষিতে যুক্তরাষ্ট্র মালির নিরাপত্তা বাহিনীকে তাদের নিরাপত্তা সহায়তা স্থগিত করে। একইসঙ্গে আফ্রিকান ইউনিয়ন এবং পশ্চিম আফ্রিকার দেশগুলোর অর্থনৈতিক সম্প্রদায় (ইকোওয়াস) মালিকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করে।

এর আগে বৃহস্পতিবার বিশ্বজুড়ে মূলত ফরাসিভাষী রাষ্ট্রগুলোর প্রতিনিধিত্ব করে এমন সংস্থা ইন্টারন্যাশনাল অর্গানাইজেশন অব লা ফ্রাঙ্কোফোনি মালিকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করে।

সূত্র : ফ্রান্স টোয়েন্টিফোর ডটকম

Share the post
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply