যৌতুকের লোভে চকরিয়ায় স্ত্রী হত্যার অভিযোগে স্বামী আটক

মোহাম্মদ উল্লাহ , চকরিয়া :

কক্সবাজারের চকরিয়ায় ৭ মাস বয়সী কন্যা সন্তানের জননী মেরিনা আক্তার (২২) কে শ্বাসরোধ করে হত্যা করেছে যৌতুক লোভী স্বামী মিজানুর রহমান(২৫)। এমনটায় অভিযোগ করেছে নিহতের চাচা মো. মনছুর আলম।

আজ রবিবার সকাল ১০টার দিকে উপজেলার চিরিঙ্গা ইউনিয়নের চরণদ্বীপ চারাইল্যাপাড়া গ্রামে এ হত্যার ঘটনাটি ঘটে। নিহত গৃহবধূর মেরিনার ৭ মাস বয়সী এক ফুটফুটে এক কন্যা সন্তান রয়েছে।

এ ঘটনায় ঘাতক স্বামী মিজানুর রহমান (২৫) কে জনগনের সহযোগিতায় আটক করে পুলিশের কাছে সোপার্দ করেছে হাসপাতাল কতৃপক্ষ।

চকরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরী বিভাগের চিকিৎসক মো. নাজিম উদ্দিন বলেন, “হাসপাতালে আনার আগেই গৃহবধূ মেরিনার মৃত্যু হয়। তাকে হত্যা করা হয়েছে এমন সন্দেহ হলে ঘাতক স্বামীকে আটক করে থানায় খবর দিই।”

নিহতের মা দিল নূর বেগম বলেন, “গতকাল শনিবার আমার মেয়ে মেরিনা বাড়ি থেকে স্বামীসহ তার শ্বশুর বাড়িতে যায়। আজ রবিবার সকালে মেরিনা মোবাইল ফোনে জানায়- ‘মা আমাকে বাঁচান, আমাকে না নিয়ে গিলে দ শশুর বাড়ীর লোকজন আমাকে মেরে ফেলবে।’ একথা বলার পর মোবাইলের লাইন কেটে দেয়। এর এক ঘন্টা পর তার শ্বশুরবাড়ি থেকে তাকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার কথা বলা হয়। হাসপাতালে এসে দেখতে পাই মেয়ে মেরিনার লাশ। মেয়ের জামাইকে যৌতুক বাবত অনেক টাকা দেওয়ার পরেও মেয়েকে বাচাঁতে পারলাম না।”

তিনি আরো বলেন, “বিয়ের পর থেকে আমরা বিভিন্ন সময়ে যৌতুক হিসেবে মেয়ে জামাইকে নগদ টাকা প্রদান করি। আমার মেয়ের মত যৌতুকের কারণে অল্প বয়েসে কাউকে যাতে মরতে না হয় । আমি প্রশাসনের কাছে আমার মেয়ের হত্যার সুষ্ঠু বিচার চাই।”

নিহত গৃহবধূর সুরতহাল রিপোর্ট তৈরী করা এসআই তুষ্ট লাল বিশ্বাস জানান, নিহতের শরীরে কোন আঘাতের চিহ্ন পাওয়া না গেলেও নিহতের পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতে ময়না তদন্তের জন্য প্রেরণ করা হবে।

ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্ত শেষে লাশ নিহত পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে। ফরেনন্সিক রিপোর্ট না পাওয়া পর্যন্ত এটি হত্যা নাকি আত্মহত্যা তা নিশ্চিত করে বলা যাবে না।

Share the post
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply