রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসনে উন্নয়ন সহযোগীদের ভূমিকা রাখতে হবে : স্থানীয় সরকার মন্ত্রী – CoxsbazarNEWS.Com

[ad_1]

মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম বলেছেন, রোহিঙ্গা শরনার্থীরা মিয়ানমারের নাগরিক। তাদেরকে মানবিক দৃষ্টিকোণ থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০১৭ সালে এখানে আশ্রয় দিয়েছিলেন। আজ রোহিঙ্গা শরনার্থীদের কারণে স্থানীয় জনগোষ্ঠী সামাজিক, মানসিক ও পারিবারিকভাবে বিপর্যস্ত। ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে পরিবেশ ও অবকাঠামো। এ অবস্থায় স্থানীয় ক্ষতিগ্রস্তদের সার্বিক সহযোগিতার জন্য আন্তর্জাতিক সংস্থাসহ দেশ-বিদেশি এনজিওদেরকে এগিয়ে আসতে হবে। পাশাপাশি রোহিঙ্গাদের দ্রুত স্বদেশে ফেরত পাঠানোর জন্য উন্নয়ন সহযোগিদের আন্তর্জাতিক পর্যায়ে বেশি ভূমিকা রাখতে হবে।

তিনি বলেন, রোহিঙ্গা শরনার্থীদের এখানে সম্পূর্ণ অস্থায়ীভাবে থাকার ব্যবস্থা করা হয়েছে। একজন মানুষ সুন্দরভাবে বাঁচার জন্য যা প্রয়োজন তার সব কিছুর ব্যবস্থা করা দরকার।

শুক্রবার ৭ ফেব্রুয়ারী সকালে কক্সবাজারের উখিয়ার কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্প-৪ এক্সটেনশনের জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর কর্তৃক সুপেয় পানির পাম্প উদ্বোধন অনুষ্ঠানে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম এসব কথা বলেন। পরে ক্যাম্প-২০ এক্সটেনশনের ইর্মাজেন্সী এসিসট্যান্স প্রকল্পের এলজিইডি অংশ ও ফুড ডিস্ট্রিবিউশন পয়েন্ট উদ্বোধন করেন তিনি।

স্থানীয় সরকার মন্ত্রী আরো বলেন, রোহিঙ্গা শরনার্থীরা যেন স্থানীয় জনগোষ্ঠীর সঙ্গে
মিশে না যায় সেই জন্য সরকার কাঁটা তারের বেড়া দিয়ে রোহিঙ্গা শরনার্থী ও স্থানীয়দের নিরাপত্তা নিশ্চিত করেছে। রোহিঙ্গাদের কারণে এখানকার ক্ষতিগ্রস্ত কক্সবাজারে পরিবেশ, পানি, জলাশয় এবং বর্জ্য ব্যবস্থাপনা উন্নয়নে আরো বেশি কাজ করতে হবে।

এসময় রোহিঙ্গা শিবিরের বেশ কয়েকটি পরিবারের সাথে কথা বলেন স্থানীয় সরকার মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম। পরে উখিয়ার ময়নারঘোনা রোহিঙ্গা ক্যাম্প-১২ তে আইওএম পরিচালনাধীন সুপেয় পানির পাম্পও কার্যক্রম পরিদর্শন করেন।

এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, স্থানীয় সরকার বিভাগের সিনিয়র সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ, স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরে প্রধান প্রকৌশলী সুশংকর আচার্য্য, জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের প্রধান প্রকৌশলী মোঃ সাইফুর রহমান, অতিরিক্ত শরনাথী ত্রাণ প্রত্যাবাসন কমিশনার মিজানুর রহমান (যুগ্মসচিব), শামসুদ্দোজা নয়ন (উপসচিব), অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (উন্নয়ন ও মানব সম্পদ ব্যবস্থাপনা) এস.এম সরওয়ার কামাল, উখিয়ার ভারপ্রাপ্ত ইউএনও আমিমুল এহসান খান, নিবার্হী ম্যাজিস্ট্রেট মাসুদুর রহমান রুবেল, উখিয়া থানার ওসি আবুল মনসুর, আইওএম ও দাতা সংস্থা প্রতিনিধি, ক্যাম্প ইনচার্জসহ বিভিন্ন আইএনজিও এবং এনজিও’র কর্মকর্তারা।



[ad_2]

সৌজন্যে

Share the post
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply