সন্ধান পাওয়া গেল গোপন মহাদেশের

আন্তর্জাতিক নিউজ:

গবেষকরা দাবি করছেন, সম্প্রতি একটি ‘গোপন’ মহাদেশের সন্ধান লাভ করেছেন তারা । মহাদেশটি আকারে গ্রিনল্যান্ডের সমান। তবে তাদের দাবি, এর বেশিরভাগ অংশই ভূমধ্যসাগরের তলদেশে রয়েছে ।

সম্প্রতি নেদার‍ল্যান্ডসের ইউট্রেক্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের এক গবেষণায় এ তথ্য জানা গেছে। চলতি মাসে ‘গন্ডোয়ানা রিসার্চ’ জার্নালে গবেষণাপত্রটি প্রকাশিত হয়েছে।

গবেষকরা বলছেন, ভূমধ্যসাগরীয় অঞ্চলের জটিল ভূতত্ত্বের বিবর্তনের ইতিহাস পুননির্মাণ করতে গিয়ে তাঁরা এক ‘গোপন’ মহাদেশের সন্ধান পেয়েছেন যার বিস্তৃতি স্পেন থেকে ইরান পর্যন্ত। তবে এই মহাদেশের বেশিরভাগটাই এখন সমুদ্রের তলদেশে রয়েছে। ‘লুকিয়ে থাকা’ মহাদেশটির নাম আটলান্টিস নয়; তার নাম গ্রেটার আড্রিয়া এমনটাই জানিয়েছেন গবেষকরা ।গবেষকদের ধারণা, ১৪ কোটি বছর আগে উত্তর আফ্রিকা থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে গিয়েছিল মহাদেশটি। তারপর দক্ষিণ ইউরোপের তলায় ঢুকে যায়।

ওই গবেষণার অন্যতম গবেষক ছিলেন নেদার‍ল্যান্ডসের ইউট্রেক্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্লোবাল টেকটনিক্স ও প্যালিওজিয়োগ্রাফির অধ্যাপক ডাইউয়ি ভন হিনসবার্গেন। তিনি জানান, আটলান্টিসের কথা ভুলে যান। ওই হারিয়ে যাওয়া মহাদেশ গ্রেটার আড্রিয়ার কথা না জেনেই প্রতি বছর সেখানে সময় কাটিয়ে যান হাজার হাজার পর্যটক।

তিনি আরো জানান, এই অঞ্চলটিকে ভূতত্ত্ববিদরা আড্রিয়া নামেই জানেন। আর তাই সদ্য আবিষ্কৃত ওই হারিয়ে যাওয়া মহাদেশকে গ্রেটার আড্রিয়া নাম দিয়েছেন তাঁরা।

মহাদেশ গঠনের রহস্যকে প্লেট টেকটনিক থিওরি দিয়ে ব্যাখ্যা করেন গবেষকরা। কিন্তু পৃথিবীর বাকি অংশের ভূতাত্ত্বিক গঠনে জন্য যেভাবে সেটির ব্যাখ্যা দেওয়া হয়, তুরস্ক ও ভূমধ্যসাগরের ক্ষেত্রে বিষয়টি অনেকটাই আলাদা। এ বিষয়ে হিনসবার্গেন বলেন, আলাদা মহাদেশ হিসেবে গ্রেটার আড্রিয়ার ‘জন্ম’ প্রক্রিয়ার শুরু প্রায় ২৪ কোটি বছর আগে। 

সূত্র : সিবিএস নিউজ

Share the post
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply