সাতক্ষীরা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদককে ধরতে পুলিশের সাঁড়াশি অভিযান

সাতক্ষীরা :

সাতক্ষীরায় হত্যা ও ছিনতাই কাজে ব্যবহৃত পিস্তল উদ্ধারের ঘটনায় সাতক্ষীরা জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ সাদিকুর রহমান সাদিকসহ চারজনের নামে মামলা দায়ের করেছে পুলিশ। সাতক্ষীরা ডিবি পুলিশের উপপরিদর্শক হাফিজুর রহমান শনিবার রাতে সদর থানায় অস্ত্র আইনে এই মামলা দায়ের করেন। তাদের ধরতে সাঁড়াশি অভিযান চালাচ্ছে পুলিশ।

মামলার আসামিরা হলেন, সাতক্ষীরা শহরের মুনজিতপুর এলাকার সৈয়দ মোখলেছুর রহমানের ছেলে জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ সাদিকুর রহমান সাদিক, শ্যামনগরের মৃত আরশাদ আলী সরদারের ছেলে আজিজুল ইসলাম, শহরের রসুলপুর মেহেদীবাগের এসএম আনিসুর রহমানের ছেলে শামীম হাসান ও একই এলাকার আব্দুল বারেকের ছেলে আহম্মেদ বাবু।

গ্রেফতারকৃত ও যাদের নামে মামলা হয়েছে তারা সবাই ছাত্রলীগের সাথে সম্পৃক্ত। এদের মধ্যে আজিজুল ইসলামকে শনিবার আদালতের মধ্যেমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

মামলার বিবরণে জানা যায়, সাতক্ষীরা জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ সাদিকুর রহমান সাদিকের কাছের লোক বলে পরিচিত মুনজিতপুরের মামুনুল ইসলাম দীপ ও কালিগঞ্জ উপজেলার সাইহাটি গ্রামের সাইফুল ইসলামকে কালিগঞ্জ থেকে ২৬ লাখ টাকা ছিনতায়ের ঘটনায় বৃহস্পতিবার গ্রেফতার করে পুলিশ।

এর আগে বৃহস্পতিবার রাতে শহরের সঙ্গীতা মোড় থেকে এই চক্রের অপর সদস্য সামী হাসানকে আটক করে পুলিশ। তাদেরকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে ছিনতাইয়ে ব্যবহৃত পিস্তলটি তারই (সাদিক) কাছের লোক বলে পরিচিত মুনজিতপুরের আজিজুল ইসলামের কাছ থেকে শুক্রবার সকালে জব্দ করা হয়। এ সময় আটক করা হয় আজিজুল ইসলামকে। আজিজুলের দেওয়া স্বীকারোক্তি অনুযায়ী পুলিশ জেলা ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক সাদিকসহ চারজনের নাম উল্লেখ করে সাতক্ষীরা সদর থানায় অস্ত্র আইনে একটি মামলা (৮৮ নং) দায়ের করে।

সাতক্ষীরা ডিবি পুলিশের অফিসার ইনচার্জ মহিদুল ইসলাম জানান, সাতক্ষীরা সদর থানায় ডিবি পুলিশ অস্ত্র আইনে একটি মামলা দায়ের করেছে।

এদিকে সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তাফিজুর রহমান জানান, সাদিকসহ পলাতকদের ধরতে সাঁড়াশি অভিযান চালানো হচ্ছে। আজিজুল ইসলামকে শনিবার বিকেলে আদালতের মধ্যেমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

প্রসঙ্গত, জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ সাদিকুর রহমানের ঘনিষ্ট সহযোগী শহরের মুনজিতপুর এলাকার মামুনুল ইসলাম দীপ ও কালিগঞ্জের সাইহাটি গ্রামের সাইফুল ইসলাম শনিবার ভোররাতে পুলিশের সাথে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত হয়। এসময় ঘটনাস্থল থেকে দুটি বিদেশী পিস্তল, ১ রাউন্ড গুলি, দুটি অত্যাধুনিক চাকু ও একটি নম্বার প্লেট বিহীন মোটর সাইকেল উদ্ধার করে পুলিশ।

সূত্র : নয়া দিগন্ত

Share the post
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply