সিলিকন ভ্যালিতে ‘স্টার্টআপ ওয়ার্ল্ড কাপে’ যাচ্ছে গেজ টেকনোলজি

[ad_1]

শনিবার বিকেলে ‘গেজ টেকনোলজি’র প্রধান নির্বাহী শেহজাদ নূরতাউসের হাতে প্রতিযোগিতার বাংলাদেশ পর্বে বিজয়ীর ট্রফি তুলে দেওয়া হয়।

কম্পিউটার ভিশন প্রযুক্তিনির্ভর উদ্ভাবন নিয়ে এক মিলিয়ন ডলার বিনিয়োগ পুরস্কারের জন্য সিলিকনভ্যালিতে প্রতিযোগিতায় বিশ্বের আঞ্চলিক পর্বে বিজয়ীদের সঙ্গে লড়তে হবে গেজ টেকনোলজিকে।

তাদের মতো আঞ্চলিক প্রতিযোগিতায় বিজয়ী ৪৬৫টিরও বেশি স্টার্টআপ চূড়ান্ত প্রতিযোগিতায় অংশ নেবে। সব আঞ্চলিক প্রতিযোগীরা মে মাসে সান-ফ্রান্সিসকোতে আয়োজিত সেমিফাইনাল এবং চূড়ান্ত প্রতিযোগিতায় অংশ নেবেন।

বাংলাদেশ পর্বে প্রথম ও দ্বিতীয় রানার্স আপ হয়েছে ‘ট্রাক লাগবে’ ও ‘অল্টারইয়ূথ’।

শনিবার চূড়ান্ত পর্বে আটটি স্টার্টআপ নিজেদের উদ্ভাবন উপস্থাপনের পর প্রথমে শীর্ষ পাঁচটি প্ল্যাটফর্মের নাম ঘোষণা করা হয়। পরে অতিথিরা সেখান থেকে বিজয়ী এবং প্রথম ও দ্বিতীয় রানার্স আপের নাম ঘোষণা করেন।

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন বিজয়ী প্ল্যাটফর্মের নাম ঘোষণা করেন। ট্রফিও তুলে দেন তিনি।

তার আগে প্রধান অতিথির বক্তব্যে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, “স্টার্টআপ ওয়ার্ল্ড কাপে  অংশ নিতে বাংলাদেশ ভালোভাবেই প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে। এই অংশগ্রহণ আমাদের প্রযুক্তি ও প্রযুক্তিনির্ভর শিল্প-বাণিজ্যে সর্বোপরি উদ্যোক্তাদের জন্য বিপুল সম্ভাবনা তৈরি করবে বলে আমি মনে করি।”

তিনি বলেন, “উদ্ভাবনী চিন্তা ও পরিকল্পনা বাস্তবায়নের এখনই উপযুক্ত সময়। ডিজিটাল প্রযুক্তি ব্যবহার করে দেশের বেসরকারি খাত এখন অনেক বেশি উৎপাদনশীল।”

অনুষ্ঠানে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, কেবল বিজয়ী প্ল্যাটফর্মই সিলিকন ভ্যালিতে যাচ্ছে না। এই বিশ্ব প্রতিযোগিতা পর্যবেক্ষণে শীর্ষ পাঁচ প্ল্যাটফর্মই সিলিকন ভ্যালিতে যাবে। তার জন্য সব ধরনের সহযেগিতা সরকারের পক্ষ থেকে করা হবে।

বাংলাদেশে এ প্রতিযোগিতা আয়োজনে ছিল পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, ভেঞ্চার ক্যাপিটাল অ্যান্ড প্রাইভেট ইক্যুইটি অ্যাসোসিয়েশন, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ, আইএফসি এবং সিলিকন ভ্যালিভিত্তিক ভেঞ্চার ক্যাপিটাল প্রতিষ্ঠান পেগাসাস টেক ভেঞ্চার।



[ad_2]

Source link

Share the post
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply