সৌদির মাথা ব্যাথার প্রধান কারণ এই হুথি বিদ্রোহী কারা?

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

ইয়েমেনের হুতি বিদ্রোহীরা দাবি করেছে, তারা কয়েক হাজার সৌদি সেনাকে আটক করেছে। ইয়েমেন এবং সৌদি সীমান্তে এক অভিযান চালিয়ে ওই সেনাদের আটক করা হয়েছে।  

হুতি সংগঠনের মুখপাত্র কর্নেল ইয়াহিয়া সারিয়া বিবিসিকে বলেন, সৌদির নাজরান শহরের কাছে তিনটি ব্রিগেড পুরোপুরি ধ্বংস করে দেওয়া হয়েছে। ৭২ ঘণ্টাব্যাপী এই হামলায় ইয়েমেনের ড্রোন, ক্ষেপণাস্ত্র ও বিমান প্রতিরক্ষা ইউনিটগুলো সমর্থন যুগিয়েছে।

তিনি আরও বলেন, হুতিরা সৌদি সেনাবাহিনীর বহু কর্মকর্তাসহ কয়েক হাজার সৈন্য, বিপুল পরিমাণ সামরিক সরঞ্জাম এবং কয়েকশ সাঁজোয়া যান আটক করেছে। এসময় আগ্রাসী বাহিনীর শতাধিক সেনা হতাহত হয়েছে।

উল্লেখ্য, ২০১৫ সালের ২৬ মার্চ থেকে প্রতিবেশী দেশ ইয়েমেনে হামলা শুরু করে সৌদি আরব।

সম্প্রতি সৌদি আগ্রাসনের কঠোর জবাব দিতে শুরু করে ইয়েমেনের হুতি বিদ্রোহীরা।

হুথি বিদ্রোহী

কয়েক দিন আগে সৌদি আরবের দুটি তেলক্ষেত্রে ভয়াবহ হামলা চালায় ইয়েমেন। এতে সৌদি আরবের তেলের উৎপাদন অর্ধেকে নেমে আসে। বিশ্ববাজারে বেড়ে যায় তেলের দাম।

কারা এই হুতি?

ইয়েমেনের হুতি হচ্ছে একটি শিয়া সম্প্রদায়।

যারা দেশটির রাজধানী সানা ও উত্তরাঞ্চলে বসবাস করে থাকে, এই হুতিদের একটি অংশ ইয়েমেনের সীমান্তবর্তী সৌদি আরবের দক্ষিণাঞ্চলীয় জেলা নাজরানেও বসবাস করে থাকে।

ইয়েমেনে ৯৯.৫ শতাংশ মুসলমান, যার মধ্য ৭০ শতাংশ সুন্নী ও ৩০ শতাংশ শিয়া। এই ৩০ শতাংশ শিয়ারাই মুলত হুতি সম্প্রদায়। এই হুতিদের ইরানের শিয়া সরকার, ইরাকের শিয়া সরকার ও লেবাননের হিজবুল্লার সহযোগী সংগঠন বলে মনে করা হয়।

Share the post
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply