স্ত্রীকে হত্যার পর থানায় নিখোঁজ ডায়েরি!

সিবিএল২৪ : সাতক্ষীরার কালিগঞ্জে দক্ষিণ শ্রীপুর ইউনিয়নের পূর্ব সোনাতলা এলাকায় সেফটি ট্যাংক থেকে এক গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বুধবার সকাল ১১টার দিকে মরদেহ উদ্ধার করা হয়। মারুফা পারভীন (৩০) সোনাতলা গ্রামের শহিদুল ইসলাম কারিগরের স্ত্রী।

সোনাতলা গ্রামের বাসিন্দা ও শহিদুলের প্রতিবেশী ফিরোজা বেগম জানান, সকাল থেকে চারদিকে দুর্গন্ধ ছড়িয়ে পড়ে। একে একে এলাকার বিভিন্ন মানুষ উপস্থিত হয়। কিন্তু দুর্গন্ধ কোথা থেকে আসছিল কেউ বুঝতে পারছিল না। পরে থানায় খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে শহিদুলকে জিজ্ঞাসাবাদ করে। জিজ্ঞাসাবাদকালে শহিদুল তার স্ত্রী মারুফাকে হত্যার কথা স্বীকার করে মরদেহ কোথায় লুকিয়ে রেখেছে দেখিয়ে দেয়।

এ সময় ঘাতক শহিদুল জানান, আমি ঝালমুড়ি বিক্রি করি। স্ত্রীর অন্য ছেলের সঙ্গে পরকীয়া রয়েছে। এটা নিয়ে আমাদের মধ্যে ঝগড়া চলছিল। ৫-৬ দিন আগে তাকে দড়ি দিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে সেফটি ট্যাংকে মরদেহ লুকিয়ে রাখি।

ঘটনার বিষয়ে কালিগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) দেলোয়ার হোসেন বলেন, শহিদুল ইসলাম তার স্ত্রী মারুফা পারভীনকে হত্যা করে নিখোঁজ হয়েছে মর্মে গত মঙ্গলবার (১৯ নভেম্বর) কালিগজ্ঞ থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন। জিডিতে শহিদুল উল্লেখ করেন, ১৭ নভেম্বর রাত ৮টার দিকে তার স্ত্রী বাড়ি থেকে নিখোঁজ হয়।

Share the post
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply