১২০ দিনে মৃত্যুর পরিসংখ্যান যা বলছে

দেশে করোনা শনাক্তের পর ১০০ দিন পেরিয়েছে গত ১৫ জুন। এরপর গতকাল রবিবার (৫ জুলাই) ১২০তম দিন পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ২ হাজার ৫২ জনের। মৃত্যুবরণকারীদের মধ্যে পুরুষ এক হাজার ৬২৪ জন; যা শতকরা ৭৯ দশমিক ১৪ শতাংশ এবং নারী ৪২৮ জন; যা শতকরা ২০ দশমিক ৮৬ শতাংশ। আজ দেশের করোনা পরিস্থিতি নিয়ে আয়োজিত স্বাস্থ্য বুলেটিনে এ তথ্য জানান স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক নাসিমা সুলতানা।

জানা যায়, দেশে মার্চ মাসে মোট মৃত্যু ছিল ৫ জন, এপ্রিলে ১৬৩ জন,  মে মাসে ৪৮২ জন এবং জুনে এক হাজার ১৯৭ জন। আর জুলাইয়ের প্রথম ৫ দিনে মৃত্যুবরণ করেছেন ২০৫ জন। পরিসংখ্যান থেকে জানা যায়, দেশে মোট মৃত্যুর ৬০ শতাংশের বেশি শুধু জুন মাসে।  

স্বাস্থ্য অধিদফতরের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, এ পর্যন্ত মৃত্যুবরণকারীদের মধ্যে ৬০ ঊর্ধ্ব ৮৯০ জন, যা  ৪৮ দশমিক ৭৩ শতাংশ; ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে ৫৯৩ জন, যা ২৮ দশমিক ৯০ শতাংশ; ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে ৩১১ জন, যা ১৫ দশমিক ১৬ শতাংশ; ৩১ থেকে ৪০ বয়সী ১৫১ জন, যা ৭ দশমিক ৩৬ শতাংশ; ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে ৭০ জন, যা ৩ দশমিক ৫১ শতাংশ; ১১ থেকে ২০ বছরের মধ্যে ২৪ জন, যা ১ দশমিক ২০ শতাংশ এবং ১০ বছরের নিচে ১৩ জন, যা শতকরা শূন্য দশমিক ৬৩ শতাংশ। 

এছাড়া, করোনায় এখন পর্যন্ত ঢাকা বিভাগে এক হাজার ৬০ জন, চট্টগ্রাম বিভাগে ৫৩৪ জন, রাজশাহী বিভাগে ১০২ জন, খুলনায় ৮৮ জন, বরিশালে ৭২ জন, সিলেটে ৮৬ জন, রংপুরে ৬১ জন এবং ময়মনসিংহ বিভাগে ৪৯ জন মৃত্যুবরণ করেছেন।

গত ২৪ ঘণ্টার মৃত্যুর পরিসংখ্যান

মৃত্যুবরণকারীদের বয়স বিশ্লেষণে দেখা যায়, ৭১ থেকে ৮০ বছরের মধ্যে ১২ জন, ৬১ থেকে ৭০ বছরের মধ্যে ৯ জন,  ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে ১৭ জন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে ১৩ জন, ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে ৩ জন, শূন্য থেকে ১০ বছরের মধ্যে একজন রয়েছেন।

২৪ ঘণ্টায় মৃত্যুবরণকারীদের মধ্যে ঢাকা বিভাগে ১৯ জন, চট্টগ্রাম বিভাগে ১৩ জন, বরিশাল বিভাগে ৫ জন, রাজশাহী বিভাগে একজন, খুলনা বিভাগে ছয় জন, সিলেটে ২ জন, রংপুরে ৮ জন এবং ময়মনসিংহ বিভাগে একজন রয়েছেন। এদের মধ্যে হাসপাতালে মারা গেছেন ৪১ জন এবং বাসায় মৃত্যুবরণ করেছেন ১৪ জন।

২৪ ঘণ্টায় মৃত্যুবরণকারী ৫৫ জনের মধ্যে ৩৭ জন পুরুষ এবং ১৮ জন নারী। এখন পর্যন্ত মৃত্যুবরণকারীদের মধ্যে পুরুষ এক হাজার ৬২৪ জন, যা শতকরা ৭৯ দশমিক ১৪ শতাংশ এবং নারী ৪২৮ জন, যা শতকরা ২০ দশমিক ৮৬ শতাংশ।

Share the post
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply