মেম্বারের বাড়ি ও সরকারি হাসপাতালে পুকুর চুরি।

মহেশখালী প্রতিনিধি

কালারমারছড়া বাজারে গত রাতে সাফা মার্কেট,কালারমারছড়া উপস্বাস্থ্য কেন্দ্র,আল হামরা হসপিটাল, রশিদ মেম্বারের বাড়ি এবং আব্দুল হক মেম্বারের বাড়ি চুরি হয় এক রাতে। গতকাল রাতেই ২টার দিকে এই ঘটনা ঘটেছে কালারমারছড়া বাজারে।

ধুম -3 স্টাইলে চুরি করে পরিকল্পিতভাবে, পেশাদার চোর। প্রশিক্ষিত চোর হতে পারে বলে মন্তব্য স্থানীয়দের। দীর্ঘদিনের পরিকল্পনা ব্যতীত এত বড় চুরি সম্ভব নয় বলে জানান ভুক্তভোগীরা।

সকালে উঠে যার যার কর্মস্থলে ফিরে দেখেন; দোকানের,হাসপাতালের তালা ভাঙ্গা। সাবেক মেম্বার রশিদ বলেন, সকালে ঘুম থেকে উঠে রুমের দরজা বাহির থেকে ছিটকিনি লাগানো। সাফা মার্কেটের ব্যবসায়ী মেহেদী বলেন, টিনের চাল ছিড়ে ঢুকে চোর। চুরি করে নিয়ে যায় সাতশ টাকা তবে অন্য জিনিস নেয়নি। ‘ভাগ্য ভালো তার ক্যাশে টাকা ছিলোনা, না হয় অনেক ক্ষতি হতো তার’এমনটাই মনে করেন মেহেদী।

উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ডা.ইসমত আরা জিমি জানান, সরকারি প্রতিষ্ঠান পর্যন্ত রক্ষা পাচ্ছে না চোরের হাত থেকে। এটা খুবই দুঃখজনক। সকালে ঘুম থেকে উঠে তিনিও দেখেন স্বাস্থ্য কেন্দ্রের দ্বিতীয় তলায় তার বাসার দরজা বাহির থেকে লক করা। হাসপাতালের ফার্মেসীতে তল্লাশী চালিয়ে নগদ টাকার খোঁজ পায়নি চোর। অন্য কোন জিনিসে হাত দেয়নি বলে জানান তিনি। এই ঘটনায় তিনি শংকিত। দুই বছর ধরে দায়িত্ব পালনকালে প্রথম, এমন ঘটনার শিকার বলে জানান। হাসপাতালের প্রধান গেইট জীর্ণ,শীর্ণ পড়ে আছে গত কয়েকমাস ধরে,নেই কোন নাইট গার্ড। সিভিল সার্জন এবং স্থানীয় কমিটিকে জানালে সংস্কারের আশ্বাস দিলেও সংস্কার হয়নি ছয় সাত মাস পরেও।

কালারমারছড়া প্রাইভেট হাসপাতাল আল-হামরার ডা.জয়নাল জানান, তার রুমেও বাহির থেকে দরজা লক করা ছিলো। পরে কর্মচারীদের ফোন করে তাদের সাহায্যে বেডরুম থেকে বের হতে পারেন তিনিও। স্টোর রুমে রাখা ফার্মেসীর ৭০,০০০ টাকা চুরি করে নিয়ে যায়। তবে চোর টাকা ছাড়া অন্য কোন জিনিস নেয়নি বলে জানান তিনি। এ ঘটনা তারা প্রশাসনকে লিখিত অভিযোগ করবে বলে জানান।

আব্দুল হক মেম্বারের ছেলে সাইফুলের বাড়িতেও ঢুকে একি স্টাইলে। বাড়ির তালা ভেঙ্গে,বাড়িতে থাকা সিসিটিভি ক্যামেরা ভেঙ্গে, বাহির থেকে বেডরুমের ছিটকিনি আটকিয়ে,অন্য রুম থেকে হাতিয়ে নিয়ে যায় সাইফুলের রাখা ৩৫,০০০ টাকা এবং তার স্ত্রীর ১৩,৫০০ টাকা।

এতবড় চুরির ঘটনায় হতচকিত এলাকাবাসী। একরাতে এমন দুর্ধর্ষ সিরিজ চুরির ঘটনায় স্থানীয়রা আতংকিত।

এ বিষয়ে বাজার কমিটির সভাপতি বলেন, বাজারে পাহারাদাররা মূল পয়েন্টে থাকে। তবে এই চোর পাড়ার রাস্তা দিয়ে প্রবেশ করায় পাহারাদারদের চোখে পড়েনি। এখন থেকে জোরদার বাড়ানো হবে বলে জানান,সভাপতি রশিদ আহমদ।

Share the post
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply